শুক্রবার - মে ২৪ - ২০২৪

এক নজরে ‘পদ্মা বহুমুখী সেতু’

বিশ্বের ১১তম দীর্ঘ সেতুর পুরো নাম পদ্মা বহুমুখী সেতু

* বিশ্বের ১১তম দীর্ঘ সেতুর পুরো নাম ‘পদ্মা বহুমুখী সেতু’

* সেতুটি নির্মাণের জন্য ৯১৮ হেক্টর জমি অধিগ্রহণ করা হয়েছে

- Advertisement -

* এই সেতুর নির্মাণ প্রতিষ্ঠান চায়না মেজর ব্রিজ ইঞ্জিনিয়ারিং কনস্ট্রাকশন কোম্পানি লিমিটেড

* সেতুর নকশা প্রণয়ন করেছে আমেরিকার মাল্টিন্যাশনাল ইঞ্জিনিয়ারিং ফার্ম AECOM

* সেতুটির দৈর্ঘ্য ৬ দশমিক ১৫ কিলোমিটার (২০,২০০০ ফুট)

* প্রস্থ ১৮ দশমিক ১০ মিটার (৫৯.৪ ফুট)

* নির্মাণকাজ শুরু হয় ২০১৪ সালের ৭ ডিসেম্বর

* সেতুটি রক্ষণাবেক্ষণ করছে বাংলাদেশ সেতু কর্তৃপক্ষ এবং তদারকির দায়িত্ব পালন করছে কোরিয়ান এক্সপ্রেসওয়ে ও বাংলাদেশ সেনাবাহিনী।

* সেতুর নিকটতম সেনানিবাস হলো পদ্মা সেনানিবাস।

* প্রতিদিন গড়ে ৭৫ হাজার যানবাহন চলাচল করবে।

* ভূমিকম্প সহনশীল মাত্রা ৯

* সেতুটির ভায়াডাক্ট ৩ দশমিক ১৮ কিলোমিটার এবং পিলার ৮১টি। মোট স্প্যান সংখ্যা ৪১।

* প্রতিটি স্পেনের দৈর্ঘ্য ১৫০ মিটার এবং প্রতিটি স্পেনের ওজন ৩ হাজার ২০০ টন।

* সেতুর স্থানাঙ্ক ২৩.৪৪৬০ ডিগ্রি (উত্তর) এবং ৯০.২৬২৩ ডিগ্রি (পূর্ব)

* পানির স্তর থেকে এই অত্যাধুনিক সেতুর উচ্চতা ৬০ ফুট এবং এর পাইলিং গভীরতা ৩৮৩ ফুট

* সেতুর উপরের তলায় চার লেনের সড়ক এবং নিচতলায় থাকবে রেললাইন

* সংযোগ সড়ক হচ্ছে জাজিরা ও মাওয়া

* সংযোগ সড়কের দূরত্ব ১৪ কিলোমিটার

* দুই পাড়ে নদী শাসন ১২ কিলোমিটার

* এই সেতু দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলের ২৯টি জেলার সঙ্গে সংযোগ ত্বরান্বিত হবে।

 

স্কারবোরো, অন্টারিও, কানাডা

- Advertisement -

Read More

Recent