বুধবার - ফেব্রুয়ারি ২১ - ২০২৪

প্রিমিয়ার ও মেয়রের কাছে আবাসন সমস্যার সমাধান প্রত্যাশা

ভ্যাঙ্কুভার প্রিমিয়ার

প্রত্যক্ষ আবাসন সংকটের মধ্যে বাস করছেন বলে জানিয়েছেন ভ্যানকুভারের ডাউনটাউন ইস্টসাইডের গৃহহীণ এক ব্যক্তি। ডাউনটাউন নেবারহুডে প্রতি সপ্তাহে ড্রাম সার্কেলের নেতৃত্ব দিয়ে থাকেন স্টিভেন স্যাকি নামের ওই ব্যক্তি। প্রতিটি বিটই লাইবেরিয়া থেকে আসা এই শরনার্থীর স্বস্তি হয়ে ধরা দেয়। এ নিয়ে দ্বিতীয়বার তিনি গৃহীণ হয়েছেন।

গেøাবাল নিউজকে সাকি বলেন, আমার বসবাসের জায়গাটি দুই মাস আগে ভস্মিভুত হওয়ার পর থেকে আমি গৃহহীণ।

- Advertisement -

প্রিন্সেস এভিনিউয়ের কাছে পাওয়েল স্ট্রিটে স্যাকির এসআরও ইউনিটটি গত আগস্টে আগুনে ক্ষতিগ্রস্ত হয়। এরপর তিনি ও আরও প্রায় ৬০ জন বাস্তুচ্যত হয়ে পড়েন। এরপর থেকে তিনি ওপেনহেইমার পার্কে বসবাস করছেন। তার বক্তব্য, প্রদেশ তাকে আবাসনের ব্যবস্থা করে দিতে ব্যর্থ হয়েছে।

স্যাকি বলেন, বিসি হাউজিং থেকে আমি কখনো ফোন পাইনি। যদিও এই অগ্নিকান্ডের পর তারা আমাকে অগ্রাধিকারে রাখার প্রতিশ্রুতি দিয়েছিল। কিন্তু কোনো অগ্রাধিকারই দেখতে পাচ্ছি না। কেউই সাহায্যের হাত বাড়াচ্ছে না। তিন দিনের জন্য তারা আমাদেরকে একটি হোটেলে রেখেছিল। এরপর বের করে দিয়েছে। এরপর থেকে কারো কোনো সাহায্য পাইনি।

ভ্যানকুভারের একটি দল মেইন স্ট্রিটের কাছে ইস্ট হ্যাস্টিংস স্ট্রিটে স্যাকিকে ব্র্যান্ডিজ হোটেল এসআরওর একটি ইউনিটে থাকার প্রস্তাব দিয়েছিল। কিন্তু ভবনের অবস্থা ও স্থানটি নিরাপদ না হওয়ায় প্রস্তাবটি ফিরিয়ে দেন তিনি।

স্যাকি বলেন, জায়গাটি তেলাপোকা ও ছারপোকায় ভরা। এ ধরনের স্থানে আমি থাকতে চাই না।

গৃহহীনদের নিয়ে কাজ ব্যক্তিরা বলছেন, নগরীতে যে ৭ হাজার সরকারি ও বেসরকারি এসআরও ইউনিট রয়েছে সেগুলোর বেশিরভাগেরই সংস্কার নেই। কিছু ইউনিট উচ্চ মূলে ভাড়া দেওয়ার ফলে পরিস্থিতি আরও খারাপ হয়েছে।

ওয়েন্ডি পেডারসেন নামে একজন বলেন, লোকজনের যাওয়ার কোনো জায়গা নেই। ডাউনটাউন ইস্টসাইডের কক্ষগুলোর অবস্থা খুবই নাজুক। লোকজন যে সেখানে যেতে চাইছে না এজন আমি তাদের কোনো দোষ দেখি না।

কবে নাগাদ আবার বসবাসের জায়গা পাবেন স্যাকির তা জানা নেই। তিনি বলেন, কমিউনিটির সাহায্য প্রয়োজন এবং একে আরও উন্নত করতে আমরা সবাই হাত বাড়িয়ে দিতে পারি।

- Advertisement -

Read More

Recent