বুধবার - মে ২২ - ২০২৪

হাইওয়ে ৪১৩ বাতিলের দাবিতে ১৭,৫০০ স্বাক্ষর

কানাডার আবহাওয়া ও জলবায়ু মন্ত্রী স্টিভেন গিলবার্ট

অন্টারিওর হাইওয়ে ৪১৩ নির্মাণ পরিকল্পনা বন্ধে ফেডারেল সরকারের হস্তক্ষেপ চেয়ে একটি পিটিশনে ১৭ হাজার ৫০০ মানুষ স্বাক্ষর করেছে। প্রস্তাবিত হাইওয়েটির নির্মাণ বাতিলের দাবিতে ডেভিড সুজুকি ফাউন্ডেশন গত বছর প্রথম পিটিশনটি চালু করে। কানাডার আবহাওয়া ও জলবায়ু মন্ত্রীর কাছে প্রকল্পটি বন্ধের দাবি জানানো হয় পিটিশনে।

পিটিশনে বলা হয়, ফেডারেল প্রস্তাব মূল্যায়নের পরই হাইওয়ের কাজ করতে হবে। অন্টারিওবাসী তাদের গ্রিনবেল্টকে ভালোবাসে এবং এটাকে ধ্বংস করে আরেকটি মেগা হাইওয়ে তারা দেখতে চায় না। ফাউন্ডেশনের তরফ থেকে প্রাদেশিক সরকারের সঙ্গে যোগাযোগ করা হয়েছে। কিন্তু কর্মকর্তারা তাদের উদ্বেগ আমলে নেননি। তারা বলছেন, হাইওয়ের দরকার। আমরা এর সঙ্গে দ্বিমত করছি। আমরা মনে করি, হাইওয়ে একদমই অপ্রয়োজনীয়র এবং খুবই ক্ষতিকর।

- Advertisement -

ছয় লেনের ৫২ কিলোমিটার দীর্ঘ প্রস্তাবিত সড়কটি ডগ ফোর্ডের প্রোগ্রেসিভ কনজার্ভেটিভ পার্টির বড় ধরনের নির্বাচনী প্রতিশ্রুতি ছিল। প্রস্তাব অনুযায়ী, হাইওয়েটি হল্টন থেকে শুরু হবে এবং হাইওয়ে ৪০১, ৪০৭ ও ৪১ কে সংযুক্ত করে ইয়র্ক রিজিয়ন পর্যন্ত যাবে। এর ফলে যাত্রীদের ৩০ মিনিট সময় বাঁচবে বলে জানিয়েছে অন্টারিও সরকার।

যদিও সমালোচকরা বলছেন, নতুন হাইওয়ের ফলে পরিবেশের ওপর যে প্রভাব পড়বে তা বিবেচনায় নিচ্ছে না সরকার। এর সঙ্গে একমত ফোরম্যান। তিনি বলেন, হাইওয়ের ফলে দক্ষিণ অন্টারিওর হাজার হাজার একর কৃষি জমি নষ্ট হবে। সেই সঙ্গে অসংখ্য প্রাণির ওপরও এর প্রভাব পড়বে।

২০২২ সালের অক্টোবরে প্রকাশিত এনভায়রনমেন্ট ডিফেন্সের এক প্রতিবেদনে ঝুঁকিতে থাকা কমপক্ষে ২৯টি প্রজাতিকে শনাক্ত করা হয়েছে, হাওয়ের ফলে যেগুলোর ওপর মারাত্মক নেতিবাচক প্রভাব পড়বে। প্রতিবেদনে আরও বলা হয়েছে, হাইওয়েটি ১৩২টি নদী ও জলাধারের মধ্য দিয়ে অতিক্রম করবে। এর ফলে ৪০০ একর প্রাকৃতিক অঞ্চল বা গ্রিনবেল্ট ক্ষতিগ্রস্ত হবে।

This article was written by Rezaul Haque as part of the LJI

- Advertisement -

Read More

Recent