বুধবার - ফেব্রুয়ারি ২১ - ২০২৪

বাংলাদেশি পোশাক শ্রমিকদের ন্যায্য মজুরি নিশ্চিতে ব্যর্থ কানাডিয়ান টায়ার

কানাডা টায়ারের সরবরাহকারী দক্ষিণ এশিয়ার কারখানাগুলোতে শ্রমিকদের উপযুক্ত মজুরি নিশ্চিতে ব্যর্থ হচ্ছে প্রতিষ্ঠানটি। কানাডিয়ান ওম্বুডসম্যান ফর রেসপন্সিবল এন্টারপ্রাইজে দাখিল করা এক অভিযোগে এ তথ্য তুলে ধরেছে কানাডিয়ান লেবার কংগ্রেস ও ইউনাইটেড স্টিলওয়ার্কার্স ইউনিয়ন। খুচরা বিক্রেতা প্রতিষ্ঠানটির সরবরাহ শৃঙ্খলে মানবাধিকার লঙ্ঘনের অভিযোগ খতিয়ে দেখার আহ্বান জানিয়েছে তারা।

- Advertisement -

অভিযোগে বলা হয়েছে, কানাডিয়ান টায়ারের সহযোগী প্রতিষ্ঠানগুলোতে পণ্য সরবরাহকারী পোশাক কারখানাগুলো তাদের শ্রমিকদের যে মজুরি দিচ্ছে তা দারিদ্রসীমার নিচে। কানাডিয়ান টায়ারের সহযোগী প্রতিষ্ঠান মার্ককে পোশাক সরবরাহ করে থাকে এসব কারখানা, যেগুলো উইন্ড রিভার, ডেনভার হেস, ডাকোটা এবং হেলি হ্যানসেন ব্র্যান্ড নামে বিক্রি হয়ে থাকে।

ন্যায়পাল শেরি মেয়ারহোফারকে লেখা অভিযোগে বলা হয়েছে, সরবরাহকারী কারখানাগুলোর শ্রমিকদের বেঁচে থাকার উপযোগী মজুরির চেয়ে কম মজুরি দেওয়াটা মানবাধিকারের লঙ্ঘন।

কানাডিয়ান টায়ার বলেছে, সরবরাহকারীরা মজুরিসহ স্থানীয় আইন যাতে পরিপালন করে তা নিশ্চিতে কাজ করছে তারা। এর অংশ হিসেবে তারা নিয়মিত মজুরি হারের ওপর নিয়মিত নজর রেখে থাকে। সেই সঙ্গে তৃতীয় পক্ষের স্বনামধন্য নিরীক্ষা প্রতিষ্ঠান দিয়ে আমাদেরকে পোশাক সরবরাহকারী কারখানাগুলো নিরীক্ষাও করা হয়।

বাংলাদেশ সেন্টার ফর ওয়ার্কার্স সলিডারিটির নির্বাহী পরিচালক কল্পনা আক্তার বলেন, কানাডিয়ান ্টায়ারের সরবরাহাকারী কারখানাগুলো বাংলাদেশের ন্যূনতম মজুরির চেয়ে কিছুটা বেশি মজুরি পরিশোধ করলেও এখনো তা ঘণ্টায় ১ ডলারের নিচে। শ্রমিকদের গাদাগাদি করে থাকতে হয় এবং সপ্তাহে ছয় দিন দৈনিক ১২ ঘণ্টা কাজ করেও খাবার কিনতে হিমশিম খেতে হয় তাদেরকে। অনেককেই তাদের নিজেদের ও পরিবারের সদস্যদের মুখে খাবার তুলে দিতে প্রতিনিয়ত সংগ্রাম করতে হয়। অনেকেই চরম দারিদ্র থেকে কয়েক কদম দূরে রয়েছে।

একজন পোশাক শ্রমিক মাসে আয় করেন গড়ে ১৭৩ ডলার। স্বাভাবিকভাবে বেঁচে থাকতে হলে এর চেয়ে ৪ থেকে ৫ গুন বেশি মজুরি বাড়ানো দরকার।

ইউনাইটেড স্টিলওয়ার্কাস ইউনিয়নের জাতীয় পরিচালক মার্টি ওয়ারেন বলেন, মার্ক’স ও কানাডিয়ান টায়ারের পণ্য সরবরাহকারী বাংলাদেশি পোশাক কারখানাগুলোতে কর্মরত নারী ও পুরুষরা দারিদ্রের মধ্যে বাস করছেন। ন্যায্য মজুরির অধিকার নিশ্চিত করার সব ধরনের প্রভাব কানাডিয়ান টায়ারের হাতে রয়েছে। তাদেরকে সে তদায়িত্ব পালন করা উচিত।

- Advertisement -

Read More

Recent