বুধবার - ফেব্রুয়ারি ২১ - ২০২৪

তালেবানদের প্রতি নারীদের ওপর নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহারের আহ্বান কানাডার

কানাডার আন্তর্জাতিক উন্নয়ন বিষয়ক মন্ত্রী হারজিত সজ্জন

আফগানিস্তানে বেসরকারি সংস্থায় কাজ করার ক্ষেত্রে নারীদের ওপর নিষেধাজ্ঞা তুলে নিতে তালেবানদের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন কানাডার আন্তর্জাতিক উন্নয়ন বিষয়ক মন্ত্রী হারজিত সজ্জন। বৃহৎ আন্তর্জাতিক সংস্থাগুলো আফগানিস্তানে কার্যক্রম বন্ধ করার ঘোষণা দেওয়ার পর এই আহ্বান জানালেন তিনি।

সন্ত্রাসী তালিকাভুক্ত সংগঠন তালেবানরা ২০২১ সালের আগস্টে কাবুল দখল করে নেয়। এরপর থেকে আফগানিস্তানের লাখ লাখ মানুষ দারিদ্র্যের মধ্যে পড়ে গেছে এবং এখন তার ক্ষুধার সম্মুখীন। জাতিসংঘের হিসাবমতে, আফগানিস্তানের প্রায় ৬০ লাখ মানুষ বর্তমানে দুর্ভিক্ষের ঝুঁকিতে রয়েছে। এছাড়া আন্তর্জাতিক রেডক্রস কমিটি দেশটির শিশুদের মধ্যে অপুষ্টি ও নিউমোনিয়া বেড়ে যাওয়ার কথা জানিয়েছে। শীতের কারণে যা নিয়ে উদ্বেগ বাড়ছে।

- Advertisement -

তালেবানদের এই সিদ্ধান্তের পরিপ্রেক্ষিতে সেভ দ্য চিলড্রেন, কেয়ার ইন্টারন্যাশনাল ও নরওয়েজিয়ান রিফিউজি কাউন্সিল এক যৌথ বিবৃতি দিয়েছে। বিবৃতিতে তারা নারী কর্মী ছাড়া সহায়তা দিতে অপারগতার কথা জানিয়েছে।
হারজিত সজ্জন এক বিবৃতিতে বলেছেন, বেসরকারি সংস্থাগুলোর নারী কর্মীদের আফগানিস্তানে দায়িত্ব পালন করতে না দেওয়ার ব্যাপারে তালেবানদের সিদ্ধান্তে আমাদের সরকার গভীরভাবে উদ্বিগ্ন। আফগান নাগরিকদের জরুরি মানবিক প্রয়োজনে গুরুত্বপূর্ণ কাজ করছেন তারা। তালেবানদের তাদের সিদ্ধান্ত পুনর্বিবেচনার আহ্বান জানাচ্ছি আমরা। কারণ, এতে আফগান নাগরিকদের দুর্ভোগই কেবল বাড়বে।

কানাডার মানবাধিকার গ্রুপগুলো সহায়তা দিতে অপারগ বলে এরই মধ্যে জানিয়ে দিয়েছে। কারণ, কানাডা সরকার সন্ত্রাসবিরোধী আইন নিয়ে এখনো কাজ শুরু করেনি। আইনে বলা হয়েছে, পরিবহন ও পণ্য বাবদ আফগানিস্তানে অর্থ দিলে তা আইনের লঙ্ঘন হিসেবে বিবেচিত হবে।

কানাডার এই অবরোধের প্রসঙ্গ তুলে কানাডিয়ান রেডক্রসের একজন মুখপাত্র বলেছেন, তালেবানদের সিদ্ধান্ত এতে কোনো প্রভাব ফেলবে না।

বেসরকারি সংস্থায় নারীদের কাজ করতে না দেওয়ার ব্যাপারে তালেবানদের এই সিদ্ধান্তে ইউনিসেফের মতো আন্তর্জাতিক দাতা সংস্থাগুলোর মধ্যে ক্ষোভ তৈরি হয়েছে। ইউনিসেফের নির্বাহী পরিচালক ক্যাথেরিন রাসেল একে আন্তর্জাতিক মানবাধিকার আইন ও নারী অধিকারের সুস্পষ্ট লঙ্ঘন বলে মন্তব্য করেছেন।

এক বিবৃতিতে তিনি বলেছেন, দেশজুড়ে শিশু ও পরিবারগুলোর জন্য জরুরি সেবা সরবরাহের ওপর মারাত্মক প্রভাব ফেলবে এ সিদ্ধান্ত। বিশেষ করে স্বাস্থ্য, পুষ্টি, শিক্ষা ও শিশু সুরক্ষার মতো খাতগুলোতে, যেখানে মানবিক সহায়তা প্রদানকারী কর্মীদের অপরিমেয় অবদান রয়েছে।

আন্তর্জাতিক রেডক্রস কমিটি বলেছে, আফগানিস্তানে তারা শত শত নারী কর্মী নিয়োগ করেছে এবং তালেবানদের এ সিদ্ধান্ত স্বাস্থ্যসেবা ব্যবস্থার ওপর কি প্রভাব ফেলে তা নিয়ে তারা বিশেষভাবে উদ্বিগ্ন।

- Advertisement -

Read More

Recent