বুধবার - ফেব্রুয়ারি ২১ - ২০২৪

‘কানাডিয়ান স্পোর্টস কেবল মেডেলের জন্য নয়’

ক্রীড়ামন্ত্রী পাসকেল এসটি অং

অ্যাথলেটদের শুধুমাত্র মেডেল জয়ের মনোভাব পরিবর্তন করতে হবে বলে জানিয়েছেন ক্রীড়ামন্ত্রী পাসকেল এসটি-অং। এর কারণ হিসেবে তিনি বলেন, সাম্প্রতিক অসদাচরণ ও নিপীড়নের বিস্ফোরণ।

অটোয়াতে সোমবার সংসদীয় কমিটির শুনানিতে তিনি বলেন, এটা কেবলমাত্র মেডেল ও মঞ্চের জন্য হতে পারে না। আমাদের অ্যাথলেটদের সুরক্ষা ও তাদের কল্যাণ নিয়ে কথা বলা উচিত।

- Advertisement -

জাতীয় ক্রীড়া নীতিতে অন্তর্ভুক্ত চমৎকার পরিভাষাটি ২০১০ সালে ভ্যানকুভার ও ব্রিটিশ কলাম্বিয়ার হুইসলারে অনুষ্ঠিত শীতকালীন গেমে উচ্চ ফরফরম্যান্স থেকে সরে আসার প্রতিনিধিত্ব করে। ওই গেমগুলোতে স্বাগতিক দেশের সাফল্যকে পারফরম্যান্সের অবিচ্ছেদ্য অংশ হিসেবে দেখা হতো।

২০১০ সালের অলিম্পিকে কানাডা উল্লেখযোগ্য সংখ্যক পদক পায়। পরবর্তীতে অনুষ্ঠিত গ্রীষ্ম ও শীতালীন অলিম্পিকেও সাফল্যের এই ধারাবাহিকতা অক্ষুণœ রাখে তারা। কিন্তু সাফল্য ও মঞ্চে ওঠার জন্য চাপ প্রয়োগ অ্যাখলেটদের অন্যায় আচরণকে মুখ বুজে মেনে নেওয়ার মতো বিষাক্ত সংস্কৃতির অন্যতম কারণ।

এসটি-অং বলেণ, চমৎকারকে আমরা কীভাবে সংজ্ঞায়িত করবো সেটা নিয়ে সত্যিকারের আলোচনা হতে পারে। আগে এটা ছিল কেবল পদক পাওয়া ও মঞ্চে ওঠা। আমাদের সংস্থার চমৎকারিত্বকে বিবেচনায় নেওয়া প্রয়োজন। কীভাবে তারা অ্যাথলেটদের কল্যাণকে সামগ্রিক দৃষ্টিভঙ্গি হিসেবে নেবে সেটাও বিবেচনায় নেওয়া প্রয়োজন আমাদের।

কানাডায় অলিম্পিক ও প্যারালিম্পিক আয়োজনের সবচেয়ে বড় তহবিলের জোগানদাতা হচ্ছে করদাতারা। এর পরিমাণ বার্ষিক ২০ কোটি ডলার। দুই বছর আগে ক্রীড়ামন্ত্রী দায়িত্ব পাওয়া এসটি-অংকে স্ট্যাটাস অব উইমেন সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটি বিভিন্ন ধরনের প্রশ্ন করে। কমিটির সামনে উপস্থিত হয়ে যারা সাক্ষ্য দিয়েছেন তাদের মধ্যে উল্লেখযোগ্য হলো কানাডিয়ান সাইক্লিস্ট জেনেভিয়েভ জিনসন। ডিসেম্বরে তিনি বলেন, তার কোচ প্রথমবারের মতো তাকে আঘাত করে যখন তার বয়স ১৪ বছর। ১৫ বছর বয়সে তাকে যৌন নিপীড়ন করে এবং ১৬ বছর বয়সে পারফরম্যান্স বৃদ্ধিকারী মাদক তুলে দেয়।

ক্রীড়াকে নিপীড়নের সমার্থক হওয়ার সত্যিই কোনো কারণ ও যৌক্তিকতা নেই।

This article was written by Rezaul Haque as part of the LJI

- Advertisement -

Read More

Recent