শনিবার - মার্চ ২ - ২০২৪

১০ বিলিয়ন ডলারের মীমাংসায় কানাডা ও অন্টারিও

ফেডারেল আদিবাসী বিষয় সংক্রান্ত মন্ত্রী মার্ক মিলার শনিবার এ ব্যাপারে একটি বিবৃতি দিয়েছেন বিবৃতিতে তিনি বলেছেন অতীতের ভুলগুলো সমাধান এবং ভবিষ্যতে আমাদের চুক্তি মক্তিশালী করতে এই সমঝোতা সাহায্য করবে বলে আমি আশাবাদী

ভূমি ব্যবহার বাবদ অদেয় র্থের ব্যাপারে অন্টারিও সরকার ও কানাডার সঙ্গে ১০ বিলিয়ন ডলারের ঐতিহাসিক মীমাংসায় পৌঁছানোর কথা জানিয়েছেন রবিনসন হুরন ট্রিটি লিটিগেশন ফান্ডের নেতারা। ২১টি রবিসন হুরন ফার্স্ট নেশনের প্রতিনিধিত্বকারী ফান্ড শনিবার এই ঘোষণা দিয়েছে। প্রস্তাবে ১৭০ বছরের পাওনা পরিশোধের কথা বলা হয়েছে।

রবিনসন হুরন চুক্তি স্বাক্ষরিত হয়েছিল ১৮৫০ সালে এবং সম্পদের রাজস্ব বাবদ ফার্স্ট নেশন গ্রুপগুলোকে বার্ষিক অর্থ পরিশোধের প্রতিশ্রুতি দেওয়া হয়েচিল। এরপর একবারই অর্থের পরিমাণ বাড়ানো হয়। ১৮৭৫ সালে জনপ্রতি ১ দশমিক ৭০ ডলার থেকে বাড়িয়ে ৪ ডলারে উন্নীত করা হয়। এরপর থেকে আরন বাড়েনি।

- Advertisement -

আদালতের বাইরে হওয়া এই সমঝোতা অনুযায়ী, বকেয়া অর্থের অর্ধেক দেবে ফেডারেল সরকার। বাকি অর্ধেক আসবে প্রদেশের কাছ থেকে।

উইকওয়েমকুঙ্গ আনসিডেড টেরিটোরির একজন প্রতিনিধি জানান, আদালতের মাধ্যমে বিষয়টি সমাধানের জন্য ২০১২ সালে ২১টি ফার্স্ট নেশন এক জায়গায় জড়ো হয়। কিন্তু ২০২২ সালে বিষয়টি আলোচনার টেবিলে আসার পরই এর মীমাংসা হলো। রিকনসিলিয়েশন যে আদালত কক্ষে হয় না সেটা আমরা জানি। কানাডা এবং অন্টারিও আমাদের কথা শুনেছে এবং প্রস্তাবিত মীমাংসায় পৌঁছাতে আমাদের সঙ্গে আলোচনার টেবিলে বসেছে।

২০১৮ সালে অন্টারিও সুপিরিয়র কোর্ট এক রুলিংয়ে জানায়, রবিসন-হুরন চুক্তির আওতায় বার্ষিক অর্থ বাড়গানোর বাধ্যবাধকতা রয়েছে ক্রাউনের, যাতে করে এই অঞ্চল থেকে আসা রাজস্বের একটি প্রতিফলন তাতে দৃশ্যমান হয়।

বাচেওয়ানা ফার্স্ট নেশনের একজন নেতা বলেন, এই চুক্তি ভঙ্গের কারণে আমাদের কমিউনিটিকে অর্থনৈতিক, সাংস্কৃতিক ও সামাজিক দুর্ভোগের মধ্য দিয়ে যেতে হয়েছে। এই মীমাংসাকে আমরা কানাডা ও অটোয়ার জন্য চুক্তিতে উল্লেখিত আমাদের অধিকারের প্রতি সম্মান দেখানোর সুযোগ হিসেবে দেখছি।

ফেডারেল আদিবাসী বিষয় সংক্রান্ত মন্ত্রী মার্ক মিলার শনিবার এ ব্যাপারে একটি বিবৃতি দিয়েছেন। বিবৃতিতে তিনি বলেছেন, অতীতের ভুলগুলো সমাধান এবং ভবিষ্যতে আমাদের চুক্তি মক্তিশালী করতে এই সমঝোতা সাহায্য করবে বলে আমি আশাবাদী।

This article was written by Rezaul Haque as part of the LJI

- Advertisement -

Read More

Recent