শুক্রবার - মার্চ ১ - ২০২৪

ন্যুনতম মজুরিপ্রাপ্তদের জন্য বাড়ি ভাড়া অস্বাভাবিক বেশি

কেবলমাত্র দেশের তিনটি সিটিতেই রেন্টাল মজুরি ন্যূনতম মজুরির চেয়ে বেশি তিনটি শহরই কুইবেকে অবস্থিত

কানাডায় বাড়ি ভাড়ার ব্যয় নিয়ে নতুন যে প্রতিবেদন প্রকাশিত হয়েছে তাতে টরন্টোসহ আধিকাংশ শহরের ক্রয়ক্ষমতার করুণ ছবি চিত্রিত হয়েছে। সেখানে ন্যূনতম মজুরির পূর্ণকালীন দুইজন কর্মীর পক্ষেও এক শয়নকক্ষের একটি অ্যাপার্টমেন্ট ভাড়া নেওয়ার মতো সামর্থ্য নেই।

কানাডিয়ান সেন্টার ফর পলিসি অল্টারনেটিভস তাদের প্রতিবেদনে বলেছে, বাড়ি ভাড়া নেওয়ার সামর্থ্যরে জন্য সপ্তাহে ৪০ ঘণ্টা কাজ করতে হবে এবং আয়ের ৩০ শতাংশের বেশি ব্যয় করা যাবে না। প্রতিটি প্রদেশেই রেন্টাল মজুরি ন্যূনতম মজুরির চেয়ে অনেক বেশি। এমনকি ন্যূনতম মজুরি সবচেয়ে বেশি যে তিনটি প্রদেশে সেই ব্রিটিশ কলাম্বিয়া, অন্টারিও এবং আলবার্টাতেও পরিস্থিতি প্রায় একই।

- Advertisement -

কেবলমাত্র দেশের তিনটি সিটিতেই রেন্টাল মজুরি ন্যূনতম মজুরির চেয়ে বেশি। তিনটি শহরই কুইবেকে অবস্থিত। প্রতিবেদন অনুযায়ী, পরিস্থিতি সবচেয়ে নাজুক ভ্যানকুভার এবং টরন্টোতে। এমনকি ন্যূনতম মজুরিপ্রাপ্ত পূর্ণকালীন দুইজন কর্মীর পক্ষেও তাদের মোট বেতনের ৩০ শতাংশের বেশি আবাসনে ব্যয় না করে এক শয়নকক্ষেল একটি ইউনিট ভাড়া করার সামর্থ্য নেই।

প্রতিব্দেন অনুযায়ী, টরন্টোতে এক শয়নকক্ষের একটি অ্যাপার্টমেন্টের জন্য রেন্টাল মজুরি ৩৩ দশমিক ৬২ ডলার, যা তাদের ন্যুনতম মজুরি ১৫ দশমিক ৫০ ডলারের দ্বিগুন। দুই শয়নকক্ষের জন্য টরন্টোতে রেন্টাল মজুরি ৪০ দশমিক ৩ ডলার।

২০১৮ সালের প্রতিবেদনের সঙ্গে তুলনা করে কানাডিয়ান সেন্টার ফর পলিসি অল্টারনেটিভস দেখেছে যে, বাড়ি ভাড়া নেওয়া ন্যূনতম মজুরিপ্রাপ্তদের সামর্থ্যরে বাইরে চলে যাচ্ছে ক্রমেই। এমনকিব কুইবেকে বাড়ি ভাড়া নেওয়া তুলনামূলক সাশ্রয়ী হওয়ার পরও সেখানকার পরিস্থিতিও খারাপের দিকে যাচ্ছে।

This article was written by Rezaul Haque as part of the LJI

- Advertisement -

Read More

Recent