বৃহস্পতিবার - এপ্রিল ১৮ - ২০২৪

গ্রিনবেল্ট ইস্যুতে ক্ষমা চাইলেন স্টিভ ক্লার্ক

স্টিভ ক্লাক ক্ষমা চেয়েছেন অডিটর জেনারেলের এক প্রতিবেদনে গ্রিনবেল্ট থেকে জমি অবমুক্তকরণের প্রক্রিয়ায় তিনি নৈতিকতার নিয়ম লঙ্ঘন করেছেন বলে প্রতীয়মান হওয়ার পর ক্ষমা চাইলেন তিনি

অন্টারিওর আবাসনমন্ত্রী স্টিভ ক্লাক ক্ষমা চেয়েছেন। অডিটর জেনারেলের এক প্রতিবেদনে গ্রিনবেল্ট থেকে জমি অবমুক্তকরণের প্রক্রিয়ায় তিনি নৈতিকতার নিয়ম লঙ্ঘন করেছেন বলে প্রতীয়মান হওয়ার পর ক্ষমা চাইলেন তিনি।

অন্টারিওর প্রিমিয়ার ডগ ফোর্ড এক সংবাদ সম্মেলনে আবাসনমন্ত্রীর প্রতি আস্থার বিষয়টি পুনর্ব্যক্ত করার কয়েক ঘণ্টা পর পৃথক সংবাদ সম্মেলন করেন স্টিভ ক্লার্ক। সেখানে তিনি বলেন, অন্টারিওবাবসীর কাছে আমি খোলাখুলিভাবে বলছি যে, কাজটা ঠিকমতো করতে না পারায় আমি দুঃখিত। দেখভালের প্রসঙ্গে যদি বলেন তাহলে ব্যক্তিগতভাবে আমি সর্বোত্তম কাজটি করতে পারিনি।

- Advertisement -

এর আগে প্রিমিয়ার এক সংবাদ সম্মেলনে বলেন, স্টিভ ক্লার্ক আমাদের দলের অংশ এবং অংশ হয়েই থাকবেন।

যদিও অন্টারিও লিবারেল পার্টির অন্তর্বর্তী নেতা জন ফ্রেজার এবং গ্রিন পার্টির অন্তর্বর্তী নেতা মাইক শ্রেইনার বৃহস্পতিবার বিকালে সাংবাদিকদের বলেন, ক্লার্কের পদত্যাগ করা উচিৎ বলে তারা বিশ্বাস করেন।

স্টিভ ক্লার্কের পদত্যাগের দাবি উঠেছে প্রদেশের ইন্টেগ্রিটি কমিশনারের এক কঠোর সমালোচনামূলক প্রতিবেদন প্রকাশের পর। ফোর্ড সরকার যখন গ্রিনবেল্ট উন্নয়নের পরিকল্পনা করে তখন স্টিভ ক্লার্ক নৈতিকতার নিয়ম ভঙ্গ করেন বলে প্রতিবেদনে উঠে এসেছে। প্রতিবেদন প্রকাশের পরপরই ক্লার্কের পদত্যাগের দাবি ওঠা শুরু হয়।

ইন্ট্রিগ্রিটি কমিশনার জে. ডেভিডের বুধবার প্রকাশিত প্রতিবেদনে উন্নয়নের জন্য গ্রিনবেল্টের জমি নির্বাচন তদারকিতে স্টিভ ক্লার্ক ব্যর্থ হয়েছেন বলে উল্লেখ করা হয়েছে। এই প্রক্রিয়ার মাধ্যমে নির্দিষ্ট কিছু ডেভেলপার ব্যক্তিগত স্বার্থ সিদ্ধির বিষয়টি রয়েছে বলেও প্রতিবেদনে তুলে ধরা হয়েছে।

৫০ হাজার বাড়ি নির্মাণের পরিকল্পনা বাস্তবায়নে গত বছর প্রদেশ গ্রিনবেল্ট থেকে ৭ হাজার ৪০০ একর জমি অবমুক্ত করে। এর পরিবর্তে অন্যত্র ৯ হাজার ৪০০ একর জমি গ্রিনবেল্টে যুক্ত করা হয়। আবাসন মন্ত্রাণলয়ের মন্ত্রী হিসেবে প্রক্রিয়াটি তদারকির দায়িত্ব ছিল স্টিভ ক্লার্কের। ওয়েক প্রক্রিয়াটিকে বর্ণনা করেছেন বিশৃঙ্খল এবং প্রায় হঠকারি হিসেবে।

স্টিভ ক্লার্কের পদত্যাগ দাবি করে বিরোধীদলীয় নেতা মারিট স্টাইলস ৩০ আগস্ট বিকালে বলেন, মন্ত্রীর পদত্যাগ না করাটা দুঃখজনক। প্রিমিয়ারের উচিত মন্ত্রীর পদত্যাগ দাবি করা। ন্যুনতম পক্ষে এটাই হওয়া উচিত। কেন তিনি সেটা করছেণ না? আমার কাছে সেটা বোধগম্য নয়। আমার কাছে মনে হয়, প্রিমিয়ার কিছু একটা লুকাচ্ছেন।

- Advertisement -

Read More

Recent