শুক্রবার - জুলাই ১৯ - ২০২৪

কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তা নিয়ে আরও সতর্কতার আহ্বান

বিশেষজ্ঞরা উদ্ভাবনমন্ত্রী ফ্রাসোয়াঁ ফিলিপ শ্যাম্পেইনের উদ্দেশে লেখা এক খোলা চিঠিতে বলেছেন বিলে কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তা অনুচ্ছেদটি কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তার ঝুঁকি থেকে জনগণের অধিকার ও স্বাধীনতাকে সুরক্ষা দিতে ব্যর্থ হবে

ফেডারেল প্রাইভেসি বিল থেকে কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তার ওপর পদক্ষেপের প্রস্তাব প্রত্যাহারের জন্য লিবারেল সরকারের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন ডজনখানেক নাগরিক সমাজের সংগঠন, বিশেষজ্ঞ ও শিক্ষাবিদ। এটাকে অবশ্যই আলাদাভাবে বিবেচনায় নিতে হবে বলে মন্তব্য করেছেন তারা।

বাণিজ্যিক প্রতিষ্ঠানগুলো কানাডিয়ানদের ব্যক্তিগত তথ্য কীভাবে ব্যবহার করছে তার ওপর অধিক নিয়ন্ত্রণের সুযোগ দিয়ে গত বছর প্রাইভেসি আইন প্রস্তাব করে লিবারেল সরকার। আইনে আইন অমান্যকারী প্রতিষ্ঠানের বিরুদ্ধে জরিমানা আরোপ এবং কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তা ব্যবহারের ক্ষেত্রে নতুন নিয়মও প্রস্তাব করা হয়েছে আইনে।

- Advertisement -

সংগঠনগুলোর পাশাপাশি বিশেষজ্ঞরা উদ্ভাবনমন্ত্রী ফ্রাসোয়াঁ-ফিলিপ শ্যাম্পেইনের উদ্দেশে লেখঅ এক খোলা চিঠিতে বলেছেন, বিলে কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তা অনুচ্ছেদটি কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তার ঝুঁকি থেকে জনগণের অধিকার ও স্বাধীনতাকে সুরক্ষা দিতে ব্যর্থ হবে। ব্যাপক অর্থে মানবাধিকার, শ্রম ও সাংস্কৃতিক প্রভাব বিশিষ্ট এই বিলের খসড়া তৈরির দায়িত্ব প্রধানভাবে এবং এককভাবে ইনোভেশন, সায়েন্স অ্যান্ড ইকোনমিক ডেভেলপমেন্ট কানাডাকে দেওয়া উচিত হবে না।

আইনটি হাউস অব কমন্স কমিটির বিশ্লেষণ করে দেখার কথা রয়েছে। চিঠিতে বলা হয়েছে, বিল থেকে কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তার অনুচ্ছেদটি যদি বাদ দেওয়া হয় সেক্ষেত্রে এআই সংক্রান্ত সমস্যা সমাধানে নিয়ন্ত্রণ কর্তৃপক্ষের চেষ্টা চলতে পারে এবং ২০২৫ সালে এটি বলবৎ হবে। বিলের বাকি অংশের ব্যাপারে মনোযোগ দিতে এমপিদের যথাযথ সময় দিতে হবে। কারণ, বিলটি কানাডায় ব্যক্তিগত অধিকার নিয়ে লক্ষণীয় মাত্রায় উদ্বেগ তৈরি করেছে।

খোলা চিঠিতে যেসব গ্রুপ স্বাক্ষর করেছে তাদের মধ্যে রয়েছে বি.সি. সিভিল লিবার্টিজ অ্যাসোসিয়েশন, কানাডিয়ান সিভিল লিবার্টিজ অ্যাসোসিয়েশন, ইন্টারন্যাশনাল সিভিল লিবার্টিজ মনিটরিং গ্রুপ, ওপেনমিডিয়া এবং পাবলিক ইন্টারেস্ট অ্যাডভোকেসি সেন্টার।

সরকার বলছে, উচ্চ-প্রভাব রাখা এআই সিস্টেমের মাধ্যমে কানাডিয়ানদের সুরক্ষা করাই বিলে কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তার অনুচ্ছেদটি সংযুক্ত করা হয়েছে। এআই সিস্টেম এমনভাবে মোতায়েন করা হবে যাতে করে তা ক্ষতি ও পক্ষপাতিত্ব্রে ঝুঁকি শনাক্ত, মূল্যায়ন ও কমাতে পারে।

প্রতিষ্ঠানগুলো সংশ্লিষ্ট আইন মেনে চলছে কিনা তা পর্যবেক্ষণে বিলে একটি এআই এবং ডেটা কমিশনার গঠনের কথাও বলা হয়েছে। সেই সঙ্গে তৃতীয় পক্ষের মাধ্যমে নিরীক্ষার পাশাপাশি অন্য নিয়ন্ত্রক সংস্থার সঙ্গে তথ্য বিনিময়ের কথাও বিলে উল্লেখ করা হয়েছে।

এ ছাড়া কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তা উন্নয়ন ও তার যথেচ্ছ ব্যবহারের জন্য অবৈধভাবে ডেটা সংগ্রহ করলে তার জন্য শাস্তির বিধানও রাখা হয়েছে আইনে। খোলা চিঠিতে বলা হয়েছে, বিলে সাধারণ জনগণের মতামত নেওয়া হয়নি এবং এতে বেশ কিছু ঘাটতি রয়েছে।

- Advertisement -

Read More

Recent