শুক্রবার - জুলাই ১৯ - ২০২৪

এখনো ম্যান্ডেট লেটার পাননি মন্ত্রীরা

গত আগস্টে আন্তর্জাতিক উন্নয়নমন্ত্রী আহমেদ হুসেনের কাছে নতুন দায়িত্বে তার ম্যান্ডেট কী জানতে চেয়েছিল সংবাদমাধ্যম

প্রধানমন্ত্রী জাস্টিন ট্রুডো মন্ত্রিসভা পুনর্গঠনের দুই মাস পরও তার কেবিনেট মন্ত্রীদের পর্যন্ত ম্যান্ডেট লেটার দেননি। ফলে সুনির্দিষ্ট মার্চিং অর্ডার ছাড়াই নতুন দায়িত্ব পালন করছেন তারা।

অন্টারিও ওভারসিস পাবলিক সার্ভিস দেখভালের দায়িত্বে রয়েছেন সেনেটর টনি ডিন। আপনি যদি এটা না করেন তাহলে আপনার সরকারের সাফল্য আপোষের মধ্যে পড়ে যেতে পারে। প্রত্যেকেই একই জায়গায় থাকা উচিত। সেই সঙ্গে কাক্সিক্ষত দায়িত্ব কী সে সম্পর্কে তাদের ধারণা থাকা দরকার।

- Advertisement -

২০১৫ সালে সরকার গঠনের পরপরই ট্রুডো সরকার প্রত্যেক মন্ত্রীর কাজের একটি তালিকা প্রকাশ করা হবে বলে ঘোষণা দেওয়া হয়েছিল। এটাকেই বলা হচ্ছে ম্যান্ডেট লেটার। তাতে প্রত্যেক ফেডারেল মন্ত্রীর অগ্রাধিকারগুলোর রূপরেখা দেওয়া থাকে। একই সঙ্গে সরকারি কর্মকর্তাদের সরকার যেসব নীতি এগিয়ে নিতে চায় সেগেুলোর ব্যাপারে সময়সীমা উল্লেখ করে দেওয়া হয়।

সর্বশেষ ম্যান্ডেট লেটার ইস্যু করা হয়েছিল ২০২১ সালের ডিসেম্বরে। সেটা ছিল সর্বশেষ ফেডারেল নির্বাচনের তিন মাস পর। এই গ্রীষ্মে জাস্টিন ট্রুডো তার বেশিরভাগ মন্ত্রীর পদ পুনর্বণ্টন করেছেন। ৩০ জন মন্ত্রীর দায়িত্ব হলনাগাদ করা হয়েছে অথবা তাদেরকে নতুন দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে, যা আগে কখনো ছিল না।

প্রতিরক্ষামন্ত্রী বিল ব্লেয়ার এর আগে বলেন, ২৬ জুলাই নতুন দায়িত্ব পাওয়ার পর এখনো তাকে কোনো ম্যান্ডেট লেটার দেওয়া হয়নি। পূর্বসূরীকে যেসব প্রতিশ্রুতি বাস্তবায়নের দায়িত্ব দিয়েছিলেন ট্রুডো সেগুলো নিয়েই কাজ করছেন তিনি।

গত আগস্টে আন্তর্জাতিক উন্নয়নমন্ত্রী আহমেদ হুসেনের কাছে নতুন দায়িত্বে তার ম্যান্ডেট কী জানতে চেয়েছিল সংবাদমাধ্যম। হুসেন অগ্রাধিকারগুলোর একটি তালিকা করেছেন। তবে তিনি আদতে ম্যান্ডেট লেটার পেয়েছেন কিনা তার কার্যালয় থেকে এ ব্যাপারে কিছু বলা হয়নি।

এর আগে আদিবাসী বিষয়ক মন্ত্রী প্যাটি হাইডু এক সাক্ষাৎকারে বলেন, তিনি হালনাগাদকৃত ম্যান্ডেট লেটারের প্রত্যাশা করছেন না। কারণ, ২০২১ সালের শেষ দিক থেকে তিনি একই দায়িত্বে রয়েছেন।

This article was written by Rezaul Haque as part of the LJI

- Advertisement -

Read More

Recent