শনিবার - মার্চ ২ - ২০২৪

আর্থিক ও মুদ্রানীতি বিপরীত দিকে ধাবমান

আর্থিক ও মুদ্রানীতি বিপরীত দিকে ধাবিত হচ্ছে বলে জানিয়েছে ব্যাংক অব কানাডার গভর্নর টিক ম্যাকক্লেম এর ফলে মূল্যস্ফীতি নামিয়ে আনা কঠিন হচ্ছে

আর্থিক ও মুদ্রানীতি বিপরীত দিকে ধাবিত হচ্ছে বলে জানিয়েছে ব্যাংক অব কানাডার গভর্নর টিক ম্যাকক্লেম। এর ফলে মূল্যস্ফীতি নামিয়ে আনা কঠিন হচ্ছে।

সুদের হার সংক্রান্ত সর্বশেষ সিদ্ধান্ত ও প্রান্তিক অর্থনৈতিক প্রাক্কলন প্রকাশের পর হাউস অব কমন্স ফিন্যান্স কমিটির এমপিদের সামনে হাজির হন গভর্নর। কনজার্ভেটিভ এমপি জশরাজ সিং হালানের এক প্রশ্নের উত্তরে তিনি বলেন, মূল্যস্ফীতি কমিয়ে আনার ব্যাপারে কেন্দ্রীয় ব্যাংকের যে চেষ্টা তাতে সরকারের ব্যয় কাজে আসছে। ফেডারেল ও প্রাদেশিক বাজেট অনুযায়ী, আগামী বছর সরকারের মোট ব্যয় জোগানের চেয়ে দ্রুত হবে। উচ্চ মূল্যস্ফীতির চাপও থাকবে।

- Advertisement -

গভর্নর বলেন, আর্থিক ও মুদ্রানীতি যদি একই দিকে ধাবমান থাকত তাহলে আরও ভালো হতো। একই সঙ্গে অন্যান্য দেশের সঙ্গে কানাডার আর্থিক অবস্থান তুলনা করে দেখাও গুরুত্বপূর্ণ। কানাডাকে আপনাকে তুলনা করতে হবে অন্যান্য দেশের সঙ্গে। কানাডার ঘাটতি-জিডিপি অনুপাত জি৭ দেশগুলোর মধ্যে সর্বনিম্ন।

২০২২ সালে পণ্যমূল্য বৃদ্ধির জন্য প্রাথমিকভাবে দায়ী করা হয়েছিল বৈশ্বিক পরিস্থিতিকে। সরবরাহ ব্যবস্থায় বিশৃঙ্খলা এবং রাশিয়া-ইউক্রেন যুদ্ধ এর মধ্যে অন্যতম।

এদিকে কেন্দ্রীয় ব্যাংক অভ্যন্তরীণ মূল্যস্ফীতির চাপের কথা উল্লেখ করায় সরকারের ব্যয়ের দিকেও দৃষ্টি দেওয়া হয়েছে। ব্যয় ও মূল্যস্ফীতি কমিয়ে আনতে ২০২২ সালের মার্চ থেকে কেন্দ্রীয় ব্যাংকের নীতিনির্ধারণী সুদের হার দ্রুত বাড়িয়েছে।

উচ্চ সুদের হারের কারণে অর্থনীতি ন্যুব্জ হওয়ায় ব্যাংক অব কানাডা গত সপ্তাহে নীতিনির্ধারণী সুদের হার ৫ শতাংশে অপরিবর্তিত রেখেছে। তবে মূল্যস্ফীতি উচ্চ থাকলে সুদের হার আরও বাড়ানোর রাস্তা উন্মুক্ত রেখেছে কেন্দ্রীয় ব্যাংক।

গত সেপ্টেম্বরে কানাডার বার্ষিক মূল্যস্ফীতির হার ছিল ৩ দশমিক ৮ শতাংশ। ২০২৫ সালে তা ২ শতাংশ লক্ষ্যের মধ্যে চলবে আসবে বলে আশা করছে ব্যাংক অব কানাডা।

- Advertisement -

Read More

Recent