শুক্রবার - মে ২৪ - ২০২৪

যুদ্ধবিরতির পক্ষে ভোট দিল কানাডা

পররাষ্ট্রমন্ত্রী মেলানি জোলি ১২ ডিসেম্বর পার্লামেন্ট হিলে বলেন এটা আমাদের অবশ্যই স্বীকার করতে হবে যে আমাদের চোখের সামনে যা ঘটছে তা কেবল সহিংসতার চক্রকে বাড়িয়েই তুলবে

ইসরায়েল ও হামাসের মধ্যে অবিলম্বে মানবিক যুদ্ধবিরতির দাবিতে জাতিসংঘে আনা একটি নন-বাইন্ডিং প্রস্তাবের পক্ষে প্রথমবারের মতো ভোট দিয়েছে কানাডা। এর মধ্যে দিয়ে বছরের পর বছর ধরে চলে আসা কানাডিয়ান নীতিতে পরিবর্তন এল, যা ইহুদি গ্রুপগুলোকে হতাশ করেছে।

লিবারেলরা বলছে, গাজা ভূখন্ডে যে হত্যাযজ্ঞ চলছে তা তাদেরকে এই পরিবর্তনের দিকে নিয়ে গেছে। পররাষ্ট্রমন্ত্রী মেলানি জোলি ১২ ডিসেম্বর পার্লামেন্ট হিলে বলেন, এটা আমাদের অবশ্যই স্বীকার করতে হবে যে, আমাদের চোখের সামনে যা ঘটছে তা কেবল সহিংসতার চক্রকে বাড়িয়েই তুলবে। এর মাধ্যমে হামাসের ও ইসরায়েলের প্রতি হুমকির স্থায়ী পরাজয় হবে না, যেটা জরুরি। ইসরায়েলি এবং ফিলিস্তিনিদের ভবিষ্যতের কথা মাথায় রেখে কানাডা মানবিক যুদ্ধবিরতির আন্তর্জাতিক দাবির সঙ্গে যোগ দিচ্ছে।

- Advertisement -

জোলি বলেন, শুরু থেকেই কানাডা বলে আসছিল যে, ইসরায়েলের আত্মরক্ষার অধিকার রয়েছে। কীভাবে ইসরায়েল তাদেরকে রক্ষা করবে এটা একটা বিষয়। এটা ইসরায়েল এবং ফিলিস্তিনের ভবিষ্যতেরও বিষয়। পাশাপাশি পুরো অঞ্চলের ভবিষ্যতও জড়িত এর সঙ্গে।

৭ অক্টোবর সশস্ত্র জঙ্গিদের আকস্মিক হামলায় ১ হাজার ২০০ মানুষ নিহত হওয়ার পর ইসরায়েল ও হামাসের মধ্যে সাম্প্রতিক এই যুদ্ধের সূত্রপাত। নিহতদের মধ্যে শত শত বেসামরিক ব্যক্তি রয়েছেন। এ ছাড়া ২৪০ জনের মতো মানুষকে জিম্মিও করা হয়।

এর জবাবে ইসরায়েল গাজা ভূখন্ডে ব্যাপক বিমান হামলা শুরু করে। সেই সঙ্গে অনেক জরুরি পরিষেবাও বন্ধ করে দেয়। ইসরায়েলের হামলায় এখন পর্যন্ত ১৮ হাজারের বেশি ফিলিস্তিনি নিহত হয়েছে বলে স্থানীয় কর্তৃপক্ষগুলো জানিয়েছে।

মেলানি জোলি বলেন, হাজার হাজার শিশু এখন এতিম হয়ে গেছে। গাজায় অসংখ্য ফিলিস্তিনি পানি, খাদ্য, জ্বালানি ও ওষুধ ছাড়াই অবর্ণনীয় দুর্ভোগ পোহাচ্ছে। তাদের বাড়ি-ঘরগুলোও মাটিতে মিশিয়ে দেওয়া হয়েছে।

ন্যাশনাল কাউন্সিল অব কানাডিয়ান মুসলিমম জাতিসংঘে এই ভোটকে মাইলফলক হিসেবে উল্লেখ করেছে। এটা এখন বাস্তবে রূপ দেওয়া দরকার বলে জানিয়েছে তারা।

এদিকে সেন্টার ফর ইসরায়েল অ্যান্ড জুইশ অ্যাফেয়ার্স বলেছে, তারা কানাডার এই অবস্থানে বিরক্ত এবং হতাশ। কারণ, প্রস্তাবে হামাসকে আত্মসমর্পনের আহ্বান জানানো হয়নি।

- Advertisement -

Read More

Recent