শুক্রবার - জুন ২১ - ২০২৪

বাক স্বাধীনতাকে নিয়ন্ত্রিত করতে চায় না লিবারেল সরকার

পরিকল্পিত অনলাইন বিলের মাধ্যমে লিবারেল সরকার বাকস্বাধীনতা নিয়ন্ত্রণ করতে চাইছে এমন অভিযোগ এড়াতে পারবেন বলে আশা প্রকাশ করেন ফেডারেল বিচারমন্ত্রী আরিফ ভিরানি

পরিকল্পিত অনলাইন বিলের মাধ্যমে লিবারেল সরকার বাকস্বাধীনতা নিয়ন্ত্রণ করতে চাইছে এমন অভিযোগ এড়াতে পারবেন বলে আশা প্রকাশ করেন ফেডারেল বিচারমন্ত্রী আরিফ ভিরানি। অনলাইনে অনীষ্ট থেকে লোকজনকে রক্ষা করাই বিলটির উদ্দেশ্য।

বিচারমন্ত্রী বলেন, বিলটি আমি সেই পর্যন্ত যেতে দিতে চাই না, যেখানে লোকজন বলার চেষ্টা করবে যে, আপনি কী ভাবছেন? অথবা কীভাবে লোকজনের সমালোচনা করতে হয়? আমরা যা নিয়ে কথা বলছি তা অবশ্যই সেটা নয়।

- Advertisement -

অক্টোবরের গোড়ার দিকে হামাস-ইসরায়েল যুদ্ধ শুরু হওয়ার পর ইহুদিবিদ্বেষ ব্যাপক হারে বেড়ে গেছে। এ অবস্থায় দীর্ঘ প্রতিশ্রুত আইনটি উত্থাপনে সরকারের ওপর চাপ বাড়ছে।

সমালোচনা হওয়ার পর গত বছর সরকার প্রাথমিক পরিকল্পনাটি থেকে সরে আসে। তবে চূড়ান্ত বিলটি আগামী বছরের কোনো এক সময় উত্থাপন করতে পারবেন বলে আশা প্রকাশ করেন ভিরানি। বিলটি তিনি কানাডিয়ান হেরিটেজের কাছ থেকে নিজের কাছে নিচ্ছেন। অনলাইন স্ট্রিমিং এবং গণমাধ্যমের জন্য ক্ষতিপূরণ শীর্ষক বিতর্কিত দুটি বিল তারা এনেছে।

বিলটি নিয়ে পুনরায় কাজ করার দায়িত্বপ্রাপ্ত সরকারের একটি বিশেষজ্ঞ দল সম্প্রতি একটি খোলা চিঠি প্রকাশ করেছে। তাতে বলা হয়েছে, লিবারেলদের সামনে বিলটি এগিয়ে নেওয়ার সময় এখন। একই ধরনের আইন আছে এমন দেশের তুলনায় কানাডিয়ান শিশুরা কম সুরক্ষিত।

অনলাইন ক্ষতি থেকে ব্যবহারকারীদের সুরক্ষঅ দিতে অনলাইন প্ল্যাটফরমগুলোকে জবাবদিহিতার আওতায় আনতে তারা সরকারের প্রতি একটি নিয়ন্ত্রক কর্তৃপক্ষ গঠনের আহ্বান জানিয়েছে। কর্তৃপক্ষের অনলাইন প্ল্যাটফরম নিয়ে তদন্ত ও নিরীক্ষার ক্ষমতা থাকবে কর্তৃপক্ষের। সেই সঙ্গে জরিমানা আরোপের ক্ষমতাও থাকতে হবে কর্তৃপক্ষের হাতে।

This article was written by Rezaul Haque as part of the LJI

- Advertisement -

Read More

Recent