শুক্রবার - মার্চ ১ - ২০২৪

ট্রুডোর সঙ্গে বৈঠক বাতিল করেছে কানাডিয়ান মুসলিম কাউন্সিল

প্রধানমন্ত্রী জাস্টিন ট্রুডোর সঙ্গে বৈঠক ২৯ জানুয়ারি আকস্মিক বাতিল করেছে দি ন্যাশনাল কাউন্সিল অব কানাডিয়ান মুসলিম

প্রধানমন্ত্রী জাস্টিন ট্রুডোর সঙ্গে বৈঠক ২৯ জানুয়ারি আকস্মিক বাতিল করেছে দি ন্যাশনাল কাউন্সিল অব কানাডিয়ান মুসলিম। তাদের অভিযোগ, হেইট ক্রাইমের বিরুদ্ধে কানাডিয়ান মুসলিমদের রক্ষা অথবা এ ব্যাপারে প্রণিধানযোগ্য পদক্ষেপ গ্রহণে ব্যর্থ হয়েছে তার সরকার।

সংগঠনটির প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা (সিইও) স্টিফেন ব্রাউন বলেন, এই প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে কথা বলে ফলপ্রসূ কিছু আর হবে বলে আমি মনে করি না। আমরা যা বলতে পারি তাতে নতুন কিছু নেই। আমরা আগেই সব বলে দিয়েছি।

- Advertisement -

বৈঠক বাতিল হওয়ার বিষয়ে সরাসরি কোনো প্রতিক্রিয়া জানাননি। প্রশ্নোত্তর পর্বে ইসলামোফোবিয়ার বিরুদ্ধে পদক্ষেপ গ্রহণের জাতীয় দিবসের মধ্যেই বক্তব্য সীমাবদ্ধ রাখেন তিনি। তার কার্যালয় থেকে পরে জানানো হয়, এ ব্যাপারে তাদের আর কোনো বক্তব্য নেই।

মুসলিম বিরোধী বিদ্বেষের বিরুদ্ধে যুদ্ধের মূল বিষয়গুলো নিয়ে ট্রুডোর সঙ্গে আলোচনা করার কথা ছিল ব্রাউনের। কিন্তু তিনি বলেন, বৈঠক থেকে তিনি নিজেকে সরিয়ে নিয়েছেন। কারণ, ২০১৫ সালে নির্বাচনী প্রচারণার সময় মুসলিম কমিউনিটিকে তিনি যে প্রতিশ্রুতি দিয়েছিলেন এখন পর্যন্ত তা অবজ্ঞা করে আসছেন। ওই নির্বাচনের মধ্য দিয়েই তিনি ক্ষমতায় এসেছিলেন।

ওইসব প্রতিশ্রুতির মধ্যে ছিল হেইট ক্রাইমের বিচারে আরও কিছু করা এবং এ ধরনের অপরাধ প্রতিরোধের কর্মসূচিতে আরও তহবিল দেওয়া। ধর্মীয় স্থাপনাগুলোতে নিরাপত্তা ক্যামেরার ব্যয় নির্বাহে সহায়তা এর মধ্যে অন্যতম।

ব্রাউন বলেন, এটা পরিস্কার হয়ে গেছে যে, যখন আমাদের জীবন অথবা নিরাপত্তা ধ্বংস হয়ে যাচ্ছে তখন সামান্য কিছু নীতি সংস্কার ছাড়া আমরা কিছু পাব না। আমাদের সরকার অর্থবহ হেইট-ক্রাইম আইন প্রণয়নে ব্যর্থ হয়েছে।

তিনি বলেন, গাজা ভূখ- ও হামাসের ওপর বোমা হামলা বন্ধে অটোয়ার পক্ষ থেকে ইসরায়েলের ওপর চাপ প্রয়োগের কোনো প্রমাণ আমরা দেখতে পাচ্ছি না। আমরা চাই এই দেশে ইসলামোফোবিয়া কমিয়ে আনতে সরকার প্রণিধানযোগ্য ব্যবস্থা নিক। সেই সঙ্গে মধ্যপ্রাচ্যে সহিংসতা বন্ধেও পদক্ষেপ নিক।

This article was written by Rezaul Haque as part of the LJI

- Advertisement -

Read More

Recent