বৃহস্পতিবার - এপ্রিল ১৮ - ২০২৪

বন্ধ হচ্ছে কানাডার সর্বশেষ স্যাম দ্য রেকর্ড ম্যান স্টোর?

কানাডায় টিকে থাকা সর্বশেষ স্যাম দ্য রেকর্ড ম্যান স্টোরটিও শিগগিরই বন্ধ হয়ে যেতে পারে

কানাডায় টিকে থাকা সর্বশেষ স্যাম দ্য রেকর্ড ম্যান স্টোরটিও শিগগিরই বন্ধ হয়ে যেতে পারে। বেলভিল স্টোরের মালিকরা স্বেচ্ছায় ব্যবসা থেকে সরে দাঁড়ানোর ঘোষণা দেওয়ায় এটি বিক্রি করে দেওয়া হচ্ছে।

স্টোরটির ভাগ্যে কী হবে তা এখনো অনিশ্চিত হলেও ব্যবসাটি কেনার মতো কাউকে না পেলে নিশ্চিতভাবেই এটি বন্ধ হয়ে যাবে।

- Advertisement -

স্ত্রী ও সন্তানের সঙ্গে আর দুটি মিউজিক রেকর্ড স্টোরের পাশাপাশি স্যাম দ্য রেকর্ড ম্যানেরও মালিক ৮৪ বছর বয়সী স্পেন্সার ডেস্টান। তিনি বলেন, যদিও আমরা এখনই এটি বন্ধ করছি না। তবে আমার যা বয়স তাতে করে আমি অনন্তকাল ধরে এটি চালিয়ে নিতে পারব না। সুতরাং, ভবিষ্যতে কোনো এক সময় নিশ্চিতভাবেই এটি বন্ধ হয়ে যাবে।

স্যাম দ্য রেকর্ড ম্যান ছিল এক সময় কানাডার সর্ববৃহৎ মিউজিক রেকর্ডি রিটেইলার। এর সর্বশেষ স্টোর হিসেবে কুইন্ট মলে ডেস্টানের স্টোরটিই এখন পর্যন্ত টিকে আছে। সবচেয়ে ভালো সময়ে ডাউনটাউন টরন্টোসহ ১৪০টি স্থানে এর স্টোর ছিল। ২০০১ সালে ফ্র্যাঞ্চাইজিটি দেউলিয়াত্বের আবেদন দাখিল করার পর সেগুলো বন্ধ হয়ে যায়। ইয়ং স্ট্রিটের স্টোরটির ঝাপি বন্ধ হয়ে যায় ২০০৭ সালে।

স্টোরটিতে রয়েছে সিডি, ভিনাইল রেকর্ড, ক্যাসে টেপ. মুভি ও অন্যান্য মিউজিক গিয়ার। স্টোরটির সঙ্গে পরিচিতজনদের এর প্রখ্যাত নিয়ন সাইন সহজেই চিনতে পারার কথা। ২০০৮ সালে টরন্টো মেট্রোপলিটন ইউনিভার্সিটি ২০০৮ সালে এটি কিনে নেয়।

কয়েক দশক ধরেই বেলভিলের স্টোরটিই সর্বশেষ হিসেবে টিকে আছে। এক বছর ধরেই এটি বিক্রি করার চেষ্টা করছেন ডেস্টান, যাতে করে তরুণ প্রজন্মের কারো হাতে মশালটি স্থানান্তর করা যায়। এখন তিনি সিদ্ধান্ত বদলেছেন এবং ডিসেম্বরে এটি বাজারে তুলবেন।

ডেস্টান বলেন, ৪৫ বছর আমরা অনেক কিছু বদলে ফেলেছি। আগামী ১০ থেকে ২০ বছরের মধ্যে অনেক ওলোটপালটের মধ্য দিয়ে আমাদের যেতে হবে বলে আমার ধারণা। এ কারণেই নতুন ধারণার কাউকে আমার প্রয়োজন। আমার বয়স যদি আজ ২৫ বছর হতো তাহলে এই আলোচনা আমি করতাম না।

ডেস্টান বলেন, সম্ভাব্য সব বিকল্পই তিনি খুঁজে দেখছেন। এটা হতে পারে গুরুত্বপূর্ণ কোনো কর্মীর হাতে দায়িত্ব তুলে দেওয়া অথবা ব্যবসা থেকে বেরিয়ে যাওয়ার কৌশল খোঁজা। রিটায়ারমেন্ট সেলের ঘোষণা দেওয়ার কারণ মজুদ সামগ্রী কমিয়ে আনা, যাতে করে বাজারে তোলার পর স্টোরটি দ্রুত বিক্রি হয়ে যায়।

তিনি বলেন, ৪৫ বছরের বেশি সময় ধরে আমরা অনেক কিছু মজুদ করেছি। সেটা ঠিকই আছে। কারণ, এটাই তাদের স্টোরকে অন্যদের থেকে ভিন্নতা দিয়েছে। কিন্তু নতুন কোনো ব্যক্তি আসলে তার তিন কপি পিঙ্ক ফ্লয়েডের দ্য ওয়ালের দরকার হবে না।

- Advertisement -

Read More

Recent