শুক্রবার - মে ২৪ - ২০২৪

রিফান্ড নিয়ে বিবাদে সরকার ও ভোক্তা অধিকার সংগঠন

মহামারির শুরুতে নিয়ন্ত্রক সংস্থাগুলো অর্থ ফেরত দেওয়ার পরিবর্তে ট্রাভেল ক্রেডিটে উৎসাহিত করার মধ্য দিয়ে যাত্রীদের বিভ্রান্ত করেছে কিনা তা নিয়ে ১৭ এপ্রিল আদালতে বিবাদে জড়ায় ফেডারেল সরকার ও ভোক্তা অধিকার সংগঠন

মহামারির শুরুতে নিয়ন্ত্রক সংস্থাগুলো অর্থ ফেরত দেওয়ার পরিবর্তে ট্রাভেল ক্রেডিটে উৎসাহিত করার মধ্য দিয়ে যাত্রীদের বিভ্রান্ত করেছে কিনা তা নিয়ে ১৭ এপ্রিল আদালতে বিবাদে জড়ায় ফেডারেল সরকার ও ভোক্তা অধিকার সংগঠন। কোভিড-১৯ মহামারি ছড়িয়ে পড়ার প্রথম মাসগুলোতে এয়ারলাইনগুলো শত শত ফ্লাইট বাতিল করে এবং যাত্রীদের অর্থ ফেরত দেওয়ার পরিবর্তে কোম্পানি ভাউচারের প্রস্তাব দেয়।

২০২০ সালের মার্চে দ্য কানাডিয়ান ট্রান্সপোর্ট এজন্সি ভাউচার নিয়ে একটি বিবৃতি জারি করে। তাতে বলা হয়, ফ্লাইট ক্রেডিট যাত্রী বাতিল হওয়া যাত্রীদের জন্য একটি যৌক্তিক পদক্ষেপ। গ্রাহক ও এয়ারলাইনের মধ্যে এ সংক্রান্ত চুক্তি থাকলেই কেবল অর্থ ফেরত দেওয়া বাধ্যতামূলক।

- Advertisement -

এয়ার প্যাসেঞ্জার রাইটস অ্যাডভোকেসি গ্রুপ যুক্তি তুলে ধরে বলে, না পাওয়া সেবার বিপরীতে অর্থ ফেরত পাওয়া যে তাদের আইনি অধিকার সে ব্যাপারে যাত্রীদের ভুল তথ্য দিয়ে নিয়ন্ত্রক সংস্থা সম্ভাব্য পক্ষপাতিত্ব দেখিয়েছে। আদালতে দাখিল করা নথিতে গ্রুপটি বলেছে, এয়ারলাইনগুলোর বেআইনি কার্যক্রমের ব্যাপারে জনগণকে বৈধতার ভুল ধারণা দেওয়ার মধ্য দিয়ে ভাউচার সংক্রান্ত সিটিএর বিবৃতি অর্থ ফেরত সংক্রান্ত বিদ্যমান ফেডারেল আইনকে খাটো করা হয়েছে।

সরকার তাদের যুক্তিতে মামলাটি খারিজ করা উচিত বলে জানিয়েছে। তারা বলেছে, সিটিএর বিবৃতিতে কেবল এটা উল্লেখ করা হয়েছে যে, ভাউচার ক্ষতিপূরণের একটি উপায় মাত্র। অ্যাডভোকেসি গ্রুপটি ভুলভাবে নির্দেশিকাটিকে কলঙ্কিত করেছে।

এয়ার প্যাসেঞ্জার রাইটসের আইনজীবী সিমন লিন যুক্তি দেখান যে, এয়ার ট্রানসাটের পক্ষ থেকে ট্রান্সপোর্ট ডিপার্টমেন্টে করা অনুরোধের পরিপ্রেক্ষিতে ভাইচার সংক্রান্ত ওই বিবৃতি দিয়েছে সিটিএ।

২০২০ সালের ২৫ মার্চ ইস্যু করা সিটিএর ওই বিবৃতি জনগণের মধ্যে অসন্তোষ সৃষ্টি করে এবং হাজার হাজার ভোক্তা পরিবহন সংস্থায় অভিযোগ করেন। বেশ কিছু এয়ারলাইন এক বছরেরও বেশি সময় পর অর্থ ফেরত দেওয়ার ব্যাপারে সম্মত হয়।

- Advertisement -

Read More

Recent