বৃহস্পতিবার - জুলাই ১৮ - ২০২৪

ঈদ আয়োজন নিয়ে কিছু ভাবনা

এখানেই মীর্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর ব্যতিক্রম তার মতন সজ্জন বিদ্বান ভদ্রলোকদের আরো বেশী সংখ্যায় রাজনীতিতে আসা জরুরী মনে করি

বিভিন্ন টেলিভিশন চ্যানেলে ঈদুল আজহা’র বিশেষ অনুষ্ঠানমালায় দেশের রাজনীতিবিদদের অংশগ্রহণে টকশোগুলো খুবই আগ্রহ নিয়ে দেখেছি। বিশেষত: ডিবিসি, এটিএন নিউজ, চ্যানেল টুয়েন্টি ফোর,জিটিভি, নিউজ টুয়েন্টি ফোর, দেশ টিভির প্রোগ্রামগুলো মিস করিনি। সবচেয়ে ভাল লেগেছে নিউজ টুয়েন্টি ফোরে প্রচারিত বিশেষ জনতন্ত্র গণতন্ত্র অনুষ্ঠানে বিএনপি’র মহাসচিব মীর্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর ও তার সহধর্মিণী মিসেস রাহাত আরা বেগম এর অনুষ্ঠানটি।

কেন ভাল লেগেছে, কেউ যদি জিগেস করেন আমি এককথায় বলব, একজন সজ্জন, বিদ্বান নিপাট ভদ্রলোক

- Advertisement -

কেমন হতে পারেন, তার উদাহরণ মীর্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর।

পুরো অনুষ্ঠানটি মনযোগ সহকারে দু’বার দেখলাম। ৪০ মিনিটের অনুষ্ঠানে তিনি তার প্রতিপক্ষ দল বা নেতৃত্বকে অসম্মান করে একটি শব্দও উচ্চারণ করেননি। যথেষ্ট সম্মান প্রদর্শন করে কথা বলেছেন। এমন কি তিনি যখন জেলা পর্যায়ে রাজনীতি করেছেন, সেই সময়ের কিছু স্মৃতিচারণে সম্মান ও শ্রদ্ধায় প্রতিপক্ষ দলের অনেকের নাম নিয়েছেন। সচরাচর এরকমটি আমাদের রাজনীতির র্শীষস্থানীয়দের মাঝে দেখা যায় না।

সবাই যেখানে নিজের ঢোল বাজাতে ব্যস্ত এবং প্রতিপক্ষকে অসম্মান করে কথা বলে কর্মী-সমর্থকদের কাছে সস্তা জনপ্রিয়তা পেতে উদগ্রীব, সেখানে রাজনীতিবিদদের প্রতি সাধারণ মানুষের শ্রদ্ধা, ভালবাসা হারিয়ে যায়।

এখানেই মীর্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর ব্যতিক্রম। তার মতন সজ্জন বিদ্বান ভদ্রলোকদের আরো বেশী সংখ্যায় রাজনীতিতে আসা জরুরী মনে করি।

মন্ট্রিয়ল, কানাডা

- Advertisement -

Read More

Recent