শুক্রবার - জুলাই ১৯ - ২০২৪

সূর্যমুখী

সূর্যমুখী ফুলের বাগান বাসার সামনে সেই এক টুকরো জায়গায়

বাগান মালিনীর খুব শখ ছিল টিউলিপ গার্ডেন হবে! সেই কবে ২০১৫ তে অটোয়া গিয়েছিলাম টিউলিপ ফেস্টিভ্যাল দেখতে তখন থেকেই!

একসময় টাউন হাউস নামক প্রাসাদে থাকা শুরু করলাম। বাসার সামনে এক টুকরো খালি জায়গা, সেটাও নিজের জমি নয়। কিন্তু সেই যে স্বপ্ন, মানে না বাঁধা। শীতের শুরুতে দেড়শো টিউলিপ এর বাল্ব কিনে বাসার সামনে লাগিয়ে দিলাম। সামারে মন ভরে গেল তার! কিন্তু দুই বছর যেতেই সেই টিউলিপ ফুটলো হাতে গোনা বিশ ত্রিশ মাত্র! বাকিরা নিখোঁজ!

- Advertisement -

সে চায় সূর্যমুখীর বাগান দেখতে। গাড়ীর তেলের দাম যেভাবে বাড়ছে, ওদিকে দ্রব্যমূল্য – হিসেবী জীবন এখন আরোও হিসেবী; সেইসঙ্গে সূর্যমুখীর বাগানে গেলে মানুষের ধ্বংসযজ্ঞ দেখে মন খারাপ হয়! এখানে সেখানে ছেঁড়া ফুল কিংবা দুমড়ানো মুচড়ানো সূর্যমূখীর গাছ!

এই বছর তাই তার জন্য করে দিলাম সূর্যমুখী ফুলের বাগান – বাসার সামনে সেই এক টুকরো জায়গায়।

সকাল বিকাল হাজারো মৌমাছি খুশীতে গুনগুন করে গান গায় আর পথ চলা পথিক একটু থেমে ছবি তুলতে ভুল করে না! কাঠবিড়ালি খুঁজে পেয়েছে তার খাবার, সেইসঙ্গে পাখিরাও – খুঁটে খুঁটে বীজ খাচ্ছে আর আগামী মৌসুমের জন্য বীজ বপন করে আমার কাজ কমিয়ে দিয়ে যাচ্ছে।

এই বেশ ভালো আছি, আলহামদুলিল্লাহ্!

কেউ এক চিলতে সূর্যমূখীর বাগান দেখতে চাইলে চলে আসুন এক বিকেলে, সঙ্গে পাবেন চা কিংবা কফি – পান করে যাবেন কিংবা সঙ্গে নিয়ে আসবেন …. !

স্কারবোরো, অন্টারিও, কানাডা

- Advertisement -

Read More

Recent