শুক্রবার - জুলাই ১৯ - ২০২৪

জেমীর জন্যে ভালোবাসা

জেমীর জন্যে ভালোবাসা

‘কবিতা’ শব্দটি শুনলেই কেমন যেন লাগে। মনে হয় ‘পরম’ কিছু। মানুষেরই বুননে ‘নিপুণ’ কিছু। স্পর্শের নাগালে অথচ ‘অধরা’ কিছু। অভিকর্ষে দূরে রাখে অথচ ‘চুম্বকীয়’ কিছু। বোধের দরজায় করাঘাত করে অথচ ‘দুর্বোধ্য’ কিছু। সামনেই দৃশ্যমান অথচ যে উঁকি দিয়ে দাঁড়ানো ‘অদৃশ্য’ কিছু। অন্ধকারে নিমজ্জিত অথচ আপন আলোয় ‘দ্যুতিমান’ কিছু। খোলা আকাশের মতো স্পষ্ট অথচ রহস্যের চাদরে ‘আবৃত’ কিছু। বড় গোলমেলে ব্যাপার এই কবিতা।

আপনারা হয়তো বলবেন গোলমেলে ব্যাপার হবে কেন? কবিতা তো কবিতাই। আহা, সে না হয় বুঝলাম। কবিতা যে কবিতাই সে তো আপনি জানেন এবং চিনেন বলেই বলছেন। কিন্তু যত্ত অসুবিধে, সে তো আমার বেলায়। কবিতাকে সনাক্ত করা ও এর মধু ও মণ্ড আহরণ করা। এ যে বড়ই কঠিন কম্ম!

- Advertisement -

কবিতা বুঝা না বুঝা বুঝিনা, কিন্তু এর যতই গভীরে যাই ‘মধু’। যতই ভেঙ্গে ফেলি হিরে কুচির বহুবর্ণ আলো এসে খেলা করে কবিতার ভেঙ্গে ফেলা টুকরোর নৃত্যরত মুদ্রায়।

ব্যক্তিভেদে এই ভাবনার রকমফের হতেই পারে। এবং এটাই স্বাভাবিক। তাই, কবিতা নিয়ে উপরের ভাবনাটুকু একান্তই আমার।

এতো কথা বললাম হোসনে আরা জেমীর প্রকাশিত কবিতাগ্রন্থ বৃষ্টি করে নেবে পাঠ করতে গিয়ে। টরন্টোয় বসবাসকারী হোসনে আরা জেমীর ‘বৃষ্টি করে নেবে’ কবিতাগ্রন্থখানি হাতে নিয়ে কত কথাই ভাবছিলাম। একজন উচ্ছল চঞ্চল তরুণী কবিতা ভালোবাসেন। আবৃত্তি করেন। যৌবনে এই কবিতার ধ্বনিতে উচ্চারণ করেন উদ্বেলিত ভালোবাসার ব্যাকুল শব্দাবলি। বড় মায়ামাখা, আকুলতাভরা, কাঁপা কণ্ঠে তারুণ্যদীপ্ত জেমীর সেই উচ্চারণ। ক্রমে কবিতাই হয়ে উঠেছে জেমীর জীবনেরই ছায়াসঙ্গী। যেখানে কবিতা সেখানেই জেমী। সাত সমুদ্র তের নদী পার হয়ে সেই বাংলাদেশেই হোক কিংবা হাডসন ও পূর্ব নদীর তীরের নিউ ইয়র্কেই হোক।

টরন্টো শহরের কবিতালগ্ন অনুষ্ঠানে তো জেমীর উপস্থিতি ও অংশগ্রহণ অনিবার্য। এহেন হোসনে আরা জেমী কবিতা লিখবেন, এটা খুবই আনন্দের বিষয়।

‘বৃষ্টি করে নেবে’ জেমীর প্রকাশিত প্রথম কবিতাগ্রন্থ। কথা সেটা নয়। কথা হলো প্রথম প্রকাশিত কবিতাগ্রন্থ হিসেবে জেমীর কৃতিত্ব আরেকটি জায়গায়। ভাষাসংগ্রামী তোফাজ্জল হোসেন ফাউন্ডেশন ও জার্নিম্যান বুকসের একটি যৌথ উদ্যোগে জেমীর প্রথম কবিতা গ্রন্থ প্রকাশিত হয়েছে। জার্নিম্যানের কর্ণধার ও বর্তমান বাংলা কবিতার একজন উল্লেখযোগ্য কবি তারিক সুজাত নিজে বইটির প্রচ্ছদ এঁকে দিয়েছেন।

একজন টরন্টোবাসী হিসেবে জেমীর এই সাফল্যে আমি গর্ব বোধ করি।

আসুন, বৃষ্টি করে নেবে শিরোনামের কবিতার কিছু অংশ পাঠ করি :

কেউ নেই, ছিল না কোনো দিন
একদিন বৈরি বাতাস এসে বলেছিল
উড়িয়ে নিয়ে যাবো ঝড়ের তাণ্ডবে
দূর থেকে দূরে
সূর্য এসে বললো, উত্তাপ দেবো
কোজাগরি চাঁদ এসে বললো
জোছনায় স্নান করাবো
আকাশ এসে বলে
নীলে নীল অবগাহন করাবো
বৃষ্টি করে নেবে নীল সাগরে
আলো আঁধারিতে জানালায় বসে
সমুদ্র দেখবো, পা ভেজাবো নীল জলে
স্বপ্ন ছিল, রয়ে গেল।
হোসনে আরা জেমীর জন্যে আমার অনেক ভালোবাসা।

- Advertisement -

Read More

Recent