শুক্রবার - মে ২৪ - ২০২৪

‘আলো দিয়ে যাই’-এর কবিতায় ডুবসাঁতার’

আক্ষরিক অর্থেই কবিতার ডুবসাঁতার শিরোনামের আয়োজনে আমরা সবাই ডুবেছিলাম কবিতার সরোবরে

কি অনন্য অসাধারণ উজ্জ্বল ছিলো ১০ জুন ২০২৩ সন্ধ্যা! শুভ্র, সুন্দর, ঝলমলে রোদেলা কবিতাময় স্নিগ্ধ সন্ধ্যায় কবি কাজী হেলালে-এর কাব্যচর্চার উপরে আলোকপাত, সম্প্রতি প্রকাশিত ‘শ্রাবণীর চোখে স্থলপদ্ম’ কাব্যের পাঠ-উন্মোচন, আলোকিত জনদের  সমৃদ্ধ কথামালা,  ও বিশিষ্ট আবৃত্তিশিল্পীদের পরিবেশনায় হীরকোজ্জ্বল সব কবিতার অসাধারণ আবৃত্তি– সব মিলিয়ে অনুপম কবিতাপ্রহর।

আক্ষরিক অর্থেই ‘কবিতার ডুবসাঁতার’ শিরোনামের আয়োজনে আমরা সবাই ডুবেছিলাম কবিতার সরোবরে।

- Advertisement -

‘আলো দিয়ে যাই’ আনন্দিত ও গর্বিত এধরণের একটি আয়োজন করার সুযোগ পেয়ে। আন্তরিক অভিনন্দন, ভালবাসা, শুভেচ্ছা ও সতত  শুভকামনা কবি কাজী হেলাল ‘আলো দিয়ে যাই’-এর এই আয়োজনে সম্মতি ও সকল সহযোগিতার জন্য। কবিপত্নী নিপা কাজী’র উজ্জ্বল উপস্থিতি ও সার্বক্ষনিক যেভাবে পরিশ্রম করেছেন- তাঁর প্রতি অসীম কৃতজ্ঞতা।

যাঁদের উপস্থিতিতে ৯ ডজের এই মিলনায়তন আলো-ঝলমল হয়েছে- সকল দর্শক, শুভাকাঙ্ক্ষী, কবিতাপ্রিয় আলোকজন- সবার প্রতি বিনম্র কৃতজ্ঞতা, শুভেচ্ছা ও ভালোবাসা।

কবি হাসান মাহমুদ, আকতার হোসেন, দেলওয়ার এলাহী, তাসরিনা শিখা, মেহরাব রহমানসহ সকল আলোকিতজনদের প্রতি গভীর কৃতজ্ঞতা।

আবৃত্তিতে, সঙ্গীতে, নৃত্যে-  যাঁদের পরিবেশনায় পুরো আয়োজন এতো দ্যুতি ছড়ালো- সবার জন্য আলো দিয়ে যাই-এর ভালবাসা, মুক্তধারায়।

আন্তরিক ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা ‘আলো দিয়ে যাই’ পরিবারের আলোক-অভিভাবক মির্জা রহমান ও আলোক-শুভার্থী শহীদুল ইসলাম মিন্টু’র প্রতি। তাঁরা সবসময় সাথে আছেন প্রেরণার উৎস হয়ে।

আর্থিক সহযোগিতার উদার হাত বাড়িয়ে এই আয়োজনকে সফল করতে এগিয়ে আসা  তিন পৃষ্ঠপোষক ব্যারিস্টার শামীম আরা, আসহাবউদ্দিন খান আসাদ ও হিশাম চিশতি- তাঁদের প্রতি আলো দিয়ে যাই-এর অবারিত কৃতজ্ঞতা।

ফুল হাতে আসা খেলাঘর কানাডা’র ছোট্ট দুই বন্ধু অনুরাগ ও এঞ্জেল- তাদের প্রতি অবিরাম ভালবাসা।

দুই আলোককর্মী ও সঞ্চালক ফারহানা আহমেদ ও ফ্লোরা নাসরিন ইভা’র প্রাণবন্ত, হাসিমুখ সঞ্চালনা ও পুরো আয়োজন ঘিরে তাঁদের একনিষ্ঠ পরিশ্রম এককথায় অনবদ্য। আন্তরিক ধন্যবাদ এই দু’জনের প্রতি।

সাউন্ডের মতো গুরু দায়িত্ব যিনি প্রবল দক্ষতায় প্রশংনয়ীভাবে পালন  করেছেন- পরিচিত প্রিয়মুখ রিংকু- তাঁর প্রতি অবারিত কৃতজ্ঞতা। অভিনন্দন।

আলোককর্মী হাসিনা হানিফ হাসি, শাপলা শালুক, কবি হোসনে আরা জেমী, অরুণা হায়দার, মেরী রাশেদীন, রাশেদা মুনির, লিনা ডি কস্তা, শিখা আখতারি আহমদ, ফারজানা সোনিয়া, সুমি রহমান- সবার সহগোগিতা অনবদ্য। আমাদের আন্তরিক কৃতজ্ঞতা সবার প্রতি।

যে কয়েকজনের কথা আলাদাভাবে উল্লেখ করতেই হয়- তারা হলেন রাশেদ শাওন, শামীম মাহমুদ, দেওয়ান মোতাহের ও সোমা সাঈদ। তাদের নিয়ে শুধু একটা কথাই বলবো- তারা না থাকলে এই আয়োজন সফলভাবে বাস্তবায়ন করাই হয়তো সম্ভব হতো না। তারা আলো দিয়ে যাই-এর বন্ধু। তাদের জন্য আমরা গর্বিত।

কবিতায় ডুবসাঁতার- আয়োজনের সাথে সংশ্লিষ্ট সবার প্রতি যারা পরামর্শ দিয়েছেন, শুভকামনা জানিয়েছেন, এতটুকু উৎসাহ যুগিয়েছেন- আমরা সবার প্রতি কৃতজ্ঞতাবদ্ধ।

‘আলো দিয়ে যাই’- তার সীমিত সামর্থ্যের মধ্যে গতানুগতিকতার বাইরে গিয়ে ছোট ছোট কিছু কাজ করতে চায়। সবার অব্যাহত সমর্থন আর  সহযোগিতাতেই কেবল সেটা সম্ভব। আমরা আলোক-প্রত্যাশী সবার সহযোগিতা চাই, সবাইকে পাশে চাই।

ছবিগুলোর অধিকাংশ রাশেদ শাওনের তোলা, কিছু ছবি ফেসবুকে বিভিন্ন বন্ধুদের  টাইমলাইন থেকে নেয়া।

- Advertisement -

Read More

Recent