শনিবার - মার্চ ২ - ২০২৪

বাঙালি ব্রেইন

বাঙালি ব্রেইনে একটা বিশেষ বায়ুকুঠুরি থাকে যা সহজে ফাটে না খুব মজবুত লাইফটাইম গ্যারান্টি

বাঙালি ব্রেইনে একটা বিশেষ বায়ুকুঠুরি থাকে। যা সহজে ফাটে না; খুব মজবুত। লাইফটাইম গ্যারান্টি! “রাইট ওনলি” সিডির মতো; কোনভাবেই আর এডিট করার উপায় থাকে না। এ কুঠুরি ব্রেইনের ৮০% এলাকা দখল করে থাকে। এখান থেকেই জীবনের যাবতীয় নির্দেশনা দেওয়া হয়। অর্থাৎ, আপনি কাকে তোষামোদ করবেন, কাকে পেটাবেন, কাকে আদর করে বিরিয়ানি খাইয়ে পরে বলবেন “শালা খাদক”, নিজে আগুন দিয়ে কীভাবে অন্যকে ফাঁসাবেন, মারাত্মক অন্যায় করেও অন্যায়ের পক্ষে কীভাবে সাফাই গাইবেন; সব যাবতীয় প্রয়োজনীয় পরামর্শ পাবেন।

এটা আবার বংশানুক্রমিকভাবে স্থানান্তরিতও হয়।

- Advertisement -

প্রোগ্রামড। আপনি যদি মানুষ পিটিয়ে থাকেন, আপনার বংশধরেরাও পেটাবে। বাচ্চা-কাচ্চা তিন বছর হলেই দেখবেন ন্যাংটো হয়ে কঞ্চি হাতে তেড়ে যাচ্ছে আরেকজনকে। তবে কাকে তাড়তে হবে, “আরেকজন” টা আসলে কে; সেটা জাস্ট একটু ধরিয়ে দিতে হবে।

ব্যাস, জীবনে আর ভুল করবে না!

এ বায়ুয়ুকুঠুরি ব্যবহার করে আপনি চুরি, ডাকাতি, খুন, ধর্ষণ, গুম; যা খুশি তাই করতে পারবেন। আকাম করেও কীভাবে রক্ষা পাবেন, সে সম্পর্কে সুস্পষ্ট নির্দেশনা পাবেন। ভয় পাবেন না।

কুঠুরিগুলো আমাদের দেশের বিরাট সম্পদ। টাকার খনি। এর নির্দেশনা মানলেই জিতবেন। এর বদৌলতেই কেক কাটতে দেখলে অপেক্ষা না করে আগেই খাবলা মেরে ইটের সমান সাইজ তুলে নিয়ে বাঁশবাগানে বসে একা একা খাবেন। এ কুঠুরি আপনাকে বারবার মনে করিয়ে দেবে- “মনে রাইখো সৈনিকগণ, বাংলাদেশ হইলো একটা মজার কেক! যত খাবলায়া খাবা, তত মজা! এ চেতনা যতদিন আগলায়ে রাখবা, তুমি কোনোদিন গরিব হবা না; পথভ্রষ্ট হবা না। খুব পাওয়ারফুল! এমন কি, ধর্মের ওপরেও এর স্থান!”

আপনি যত বড় শিক্ষিত হন, যত বড় সেলিব্রেটি-ই হন না কেন, ঐ কুঠুরির নির্দেশনা আপনাকে মানতেই হবে। উপায় নাই গোলাম হোসেন! হোটেল ক্যালিফোর্নিয়া গানের মতো; যেখানে একবার ঢুকলে আর বেরোতে পারবেন না।

যত পেটাবেন, তত প্রমোশন।

পিটন দেয়াটাই হোক এ কুঠুরির একমাত্র ব্রত।

অটোয়া, কানাডা

- Advertisement -

Read More

Recent