শুক্রবার - জুলাই ১৯ - ২০২৪

ভ্যাকসিন নিয়েছে মাত্র ২২% হাইস্কুল শিক্ষার্থী

হাইস্কুলের জ্যেষ্ঠ শিক্ষার্থীদের মধ্যে ২০ শতাংশের কিছু বেশি নিয়মিত ভ্যাকসিন নিয়েছে মহামারি পূর্ববর্তী সময়ে যেখানে নিয়মিত ভ্যাকসিন নিত প্রায় ৯০ শতাংশ হাইস্কুল শিক্ষার্থী টরন্টো পাবলিক হেলথের তথ্যে এমনটাই জানা গেছে

হাইস্কুলের জ্যেষ্ঠ শিক্ষার্থীদের মধ্যে ২০ শতাংশের কিছু বেশি নিয়মিত ভ্যাকসিন নিয়েছে। মহামারি পূর্ববর্তী সময়ে যেখানে নিয়মিত ভ্যাকসিন নিত প্রায় ৯০ শতাংশ হাইস্কুল শিক্ষার্থী। টরন্টো পাবলিক হেলথের তথ্যে এমনটাই জানা গেছে।

টরন্টো পাবলিক হেলথের (টিপিএইচ) সোমবার অনুষ্ঠিত বৈঠকে এই উপাত্ত তুলে ধরা হয়। নিয়মিত ভ্যাকসিনের মধ্যে রয়েছে হাম, মাম্পস, রুবেলা, ডিপথেরিয়া, মেনিনজোকোকাল, টিটেনাস, পোলিও, পারটিসাস এবং জল বস্ত। ২০১৭/২০১৮ সালে গ্রেড টু এর প্রায় ৮০ শতাংশ নিয়মিত ভ্যাকসিন নিলেও ২০২২/২০২৩ সালে এ হার নেমে এসেছে ৪৩ শতাংশে। অন্যদিকে ২০১৭/২০১৮ সালে গ্রেড ১১ এর ৯১, গ্রেড ১২ এর ৮৭ শতাংশ শিক্ষার্থী নিয়িমত ভ্যাকসিন নিয়েছিল। সম্প্রতি তা নেমে এসেছে যথাক্রমে ২৩ ও ২২ শতাংশ।

- Advertisement -

ভ্যাকসিনেশনের হার বাড়াতে ২০২২ সালের জুন থেকে কাজ করছে টিপিএইচ। এর অংশ হিসেবে গত বছর ১ লাখ ১৪ হাজার ভ্যাকসিন প্রদান করা হয়েছে।

এই উদ্যোগ সত্ত্বেও মহামারি পূর্ববর্তী সময়ের তুলনায় মহামারি পরবর্তী ভ্যাকসিনেশনের হার কম। এর পেছনে বেশ কিছু মূল কারণ রয়েছে। অনেক ক্ষেত্রে দেখা গেছে শিক্ষার্থীরা ভ্যাকসিন নিয়েছে কিন্তু সেটির ঘোষণা তারা দেয়নি। আবার অনেক শিশু মহামারির মধ্যে প্রাইমারি স্বাস্থ্যসেবা প্রদানকারীর নাগাল পায়নি।

ভ্যাকসিনেশনের নিম্ন হারের কারণে জনগণের ওপর কী ধরনের প্রভাব পড়তে পারে বৈঠকে তা জানতে চান সিটি কাউন্সিলর আলেজান্দ্রা ব্রাভো। তিনি বলেন, এই ধরনের রোগ জনগণের মধ্যে ছড়াতে শুরু করলে তার মানবিক ক্ষতি যে বিপুল হবে সে ব্যাপারে আপনারা আমার সঙ্গে একমত হবেন বলে আমি নিশ্চিত।

জবাবে দুবে বলেন, টরন্টোতে হামের ভ্যাকসিনেশনের হার ১০ শতাংশে নেমে আসলে এর ফলে রোগটির বিস্তার দেখা দিতে পারে।

This article was written by Rezaul Haque as part of the LJI

- Advertisement -

Read More

Recent