শনিবার - মার্চ ২ - ২০২৪

এমপি নির্বাচন করতে কি টাকা লাগে না?

এমপি নির্বাচন করতে কি টাকা লাগে না

কানাডার মত গনতান্ত্রিক দেশের এমপি নির্বাচন করতে কি টাকা লাগে না? নিশ্চয়ই লাগে। তবে কি পরিমান টাকা একজন এমপি প্রার্থি খরচ করতে পারবেন তার একটা বাস্তব সম্মত পরিমাণ নির্ধারণ করে দিয়েছে এখানকার নির্বাচন কমিশন। এমপিরা সাধারণত সেই পরিমান টাকাই খরচ করে নির্বাচন শেষে সেই খরচের পুঙ্খানুপুঙ্খ হিসাব ভাউচার সহ নির্বাচন কমিশনে জমা দিতে বাধ্য হয়।

প্রশ্ন হলো এমপি সাহেবদের এই টাকা আসে কোথা থেকে? তাদের কি দেশের অজায়গা কুজায়গা থেকে মাসিক চাঁদা উঠাতে হয়? বছর ভরে অবৈধ কমিশন বা চাঁদা সংগ্রহ করতে হয়? উত্তর হলো, না। তাহলে তারা কি নিজ পকেট থেকে খরচ করেন? অনেকেই করেন না। তারা বছরে এক দু বার সাধারণ কর্মী সমর্থকদের কাছ থেকে ডোনেশন সংগ্রহ করেন।

- Advertisement -

আজ সন্ধায় সেরকমই একটা তহবিল সংগ্রহের নৈশ ভোজ পার্টির আয়োজন করেছিল আমাদের এমপি সালমা জাহিদ। এ পর্যন্ত তিনবার এমপি হয়েছেন তিনি। তার বক্তৃতায় তিনি আজ অকপটে স্বীকার করলেন ২০১৪ সালে প্রথমবার এমপি হবার পর আর কোন টাকা তাকে পকেট থেকে খরচ করতে হয় নি।

প্রত্যেকবার জনগণের টাকাতেই তিনি এমপি নির্বাচনের খরচ মেটাতে পেরেছেন। কি সুন্দর ব্যবস্হা। অবশ্য এরা অবৈধ টাকা কিভাবে কামাবেন, তাঁদেরতো সংসদে আইন প্রণয়ণ ছাড়া অন্য কোন ধরনের উন্নয়ন প্রকল্পে হাত নেই। ক্ষমতাও নেই। কাজেই কোন ঠিকাদার বা মদ জুয়া পতিতা ব্যবসায়ী তাদের ধারে কাছেও আসে না।

ছবিতে এমপি সালমা জাহিদের সাথে আরো আছেন কানাডা লিবারেল পার্টির নুতন সভাপতি শাচিত মেহরা এবং অন্টারিও লিবারেল পার্টির অরগানাইজেশনাল চেয়ার কাসির ডার। এই বেচারা শাচিত মেহরা পার্টির সভাপতি হলেও তার কাজ সারা বছর ব্যাপী পার্টির কর্মীদের কাছ থেকে দশ ডলার পাঁচ ডলার সংগ্রহ করে পার্টির ফান্ড বৃদ্ধি করা। অর্থাৎ সিস্টেমটাই এমন যে এখানকার এমপি বা দলের নেতাদের উপরি টাকা কামানোর কোন ব্যবস্থাই নেই।

বাংলাদেশে কি আমরা পারি না, এমন ব্যবস্হা করতে যেখানে দুর্নীতি আপোষে কমে যেতে বাধ্য?

স্কারবোরো, কানাডা

- Advertisement -

Read More

Recent