শুক্রবার - জুলাই ১৯ - ২০২৪

একাকীত্বের শহর হয়ে উঠছে টরন্টো

সবচেয়ে একাকীত্বের শহরগুলোর অন্যতম হয়ে উঠতে পারে টরন্টো

সবচেয়ে একাকীত্বের শহরগুলোর অন্যতম হয়ে উঠতে পারে টরন্টো। কারণ, শহরটির প্রতি ১০ জনের মধ্যে তিনজন বাসিন্দা সপ্গাহের তিন অথবা চারদিতন একাকীত্বে ভোগেন। টরন্টো ফাউন্ডেশনের ভাইটাল সাইনস প্রতিবেদনে এমনটাই বলা হয়েছে।

‘দি পাওয়ার অব আস’ শীর্ষক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, ব্যাপকভিত্তিক এক সমীক্ষায় টরন্টোর ৩৭ শতাংশ বাসিন্দা সপ্তাহে অন্তত তিনদিন একাকীত্ব অনুভব করেন। সমীক্ষার আওতায় থাকা যেকোনো শহরের তুলনায় সপ্তাহের তিনদিন একাকীত্বে ভোগার এ হার বেশি। কানাডাব্যাপী সমীক্ষায় অন্য বড় অঞ্চল ও শহরগুলোতে সপ্তাহে অন্তত তিনদিন একাকীত্বে ভুগে থাকেন ২৮ শতাংশ মানুষ।

- Advertisement -

প্রতিবেদনের তথ্য অনুযায়ী, ভ্যানকুভারে একাকীত্বে ভোগেন ২৮ শতাংশ মানুষ। তবে মেট্রোপলিটন এলাকাগুলোর মধ্যে সবচেয়ে কম মানুষ একাকীত্বে ভোগেন মন্ট্রিয়লে ১৭ শতাংশ। অন্য অঞ্চলগুলোর মধ্যে মেরিটাইমসে সপ্তাহের একাধিক দিন একাকীত্বে ভুগে থাকেন ৩৫ শতাংশ মানুষ। ক্যালগেরি-এডমন্টন রিজিয়নে এ হার ২৮ শতাংশ।

প্রতিবেদন গুরুত্বপূর্ণ যেসব বিষয় উঠে এসেছে সেগুলো বিশ্লেষণে দেখা যায়, টরন্টোর প্রাপ্তবয়স্কদের মধ্যে চাকরি নিয়ে উদ্বেগ বাড়ছে। এর ফলে তারা খুবই একাকীত্ব ও হতাশায় ভোগেন এবং বৈষ্যমের মুখে পড়ে যান। মহামারি-পূর্ববর্তী সময়ের তুলনায় বন্ধুর সংখ্যাও কমে গেছে বলে জানিয়েছেন টরন্টোবাসীরা।

২০১৮ সালের একই সমীক্ষা প্রতিেেবদনে টরন্টোবাসীরা অনেক বেশি ঘনিষ্ঠ পারিবারিক সদস্য ও বন্ধু থাকার কথা জানিয়েছিলেন। সমীক্ষায় অংশ নেওয়া ৩০ শতাংশ টরন্টোবাসী বেশি সংখ্যক এবং ২৫ শতাংশ অনেব বেশি সংখ্যক বন্ধু থাকার কথা জানিয়েছিলেন।

প্রতিবেদনে জন্য গবেষণাকাজ পরিচালনা করেছিল এনভায়রনমেন্টস ইনস্টিটিউট ফর সার্ভে রিসার্চ। প্রাপ্তবয়স্ক মোট ২ হাজার ১০০ কানাডিয়ানের ওপর সমীক্ষাটি চালানো হয়েছিল।

চলতি বছরের প্রতিবেদনের জন্য সমীক্ষাটি পরিচালনা করা হয় ২০২২ সালের গ্রীষ্মে। যাদের ওপর সমীক্ষাটি পরিচালনা করা হয় তাদের মধ্যে টরন্টোতে বসবাসকারী ৪ হাজার ১৬৩ জন প্রাপ্তবয়স্ক মানুষও ছিলেন।

একাকীত্বের প্রধান কারণ হিসেবে কমিউনিটি থেকে বিচ্ছিন্নতাকে দায়ী করা হয়েছে প্রতিবেদনে। টরেন্টার অনেকেই মনে করেন যে, তারা এই কমিউনিটির অংশ নয়। কর্ম-সম্পর্কিত চাপ ও ক্রয়ক্ষমতা সংকটও টরন্টোবাসীর মানসিক স্বাস্থ্যের ওপর প্রভাব ফেলছে।

সমীক্ষায় অংশ নেওয়া ৫০ শতাংশের বেশি টরন্টোবাসী বলেছেন, পূর্ণকালীন একটি স্থিতিশীল চাকরি পাবেন কিনা সেই চিন্তায় তারা নিজেদের ও পরিবারের সদস্যদের নিয়ে উদ্বেগে থাকেন তারা। এ ছাড়া গ্রেটার টরন্টো এরিয়ার ২২ শতাংশ কর্মী বেশিরভাগ সময় বা সব সময়ই বিষণœ থাকেন বলে জানিয়েছেন।

এ ছাড়া ১৭ শতাংশ টরন্টোবাসী ঘিঞ্জি পরিবেশে বসবাস করতে হয় বলে জানিয়েছেন। এই মন্তব্যকারীদের প্রায় এক-তৃতীয়াংশ নবাগত।

- Advertisement -

Read More

Recent