শুক্রবার - মে ২৪ - ২০২৪

মিস্টার প্রেসিডেন্ট

মিস্টার প্রেসিডেন্ট এর একটি কপি অবশেষে বইটির বিশেষ চরিত্র আমীর উল ইসলামের হাতে পৌছাল

ইতিহাস ভিত্তিক উপন্যাস মিস্টার প্রেসিডেন্ট এর একটি কপি অবশেষে বইটির বিশেষ চরিত্র আমীর-উল-ইসলামের হাতে পৌছাল। মুক্তিযুদ্ধের সহ যোদ্ধা মরহুম নাসিম ওসমানের বোন রবীন্দ্র সঙ্গীত শিল্পী নিগার সুলতানা ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে আমার সহপাঠী ছিল। নিজ উদ্যোগে মিস্টার প্রেসিডেন্ট বইয়ের কপি কিনে সে বিভিন্ন ব্যাক্তি ও সংগঠনের কাছে পৌঁছে দিচ্ছে। নিজের পয়সা খরচ করে মুক্তিযুদ্ধের পক্ষে কাজ করা অনেক পাগলের আর এক পাগল হলো নিগার সুলতানা।

প্রসঙ্গত বলে রাখা ভালো যে আমীর-উল ইসলাম ১৯৭১ সালে প্রবাসী বাংলাদেশ সরকার গঠনে বিশেষ ভূমিকা রাখেন। বাংলাদেশের অস্থায়ী সরকারের প্রধানমন্ত্রী তাজউদ্দীন আহমদের প্রধান সহায়ক ও উপদেষ্টা হিসেবে তিনি দায়িত্ব পালন করেছিলেন।

- Advertisement -

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের স্বাধীনতার ঘোষণার আলোকে ১০ এপ্রিল স্বাধীন বাংলাদেশের প্রথম সরকারের ঘোষিত স্বাধীনতার ঘোষণাপত্রের রচয়িতা তিনি এবং ১৯৭২ সালে বাংলাদেশের সংবিধান প্রণেতাদের একজন বিশিষ্ট সদস্য ছিলেন।

মিস্টার প্রেসিডেন্ট বইতে উল্লেখ করা হয়েছে একটি ছদ্মনাম নিয়ে তিনি কলিকাতা থেকে জনাব আবু সাঈদ চৌধুরীকে লন্ডন শহরে ফোন করে প্রবাসী বাংলাদেশ সরকারের গুরুত্বপূর্ণ সিদ্ধান্ত জানিয়েছিলেন। সেই সিদ্ধান্তের ফলে যুদ্ধের নয় মাস বিচারপতি জনাব আবু সাঈদ চৌধুরী বাংলাদেশের প্রতিনিধি হয়ে বিশ্ব দরবারে ঘুরে ঘুরে মুক্তিযুদ্ধের পক্ষে সমর্থন, বঙ্গবন্ধুর মুক্তি, শরনার্থীদের সাহায্য এবং গনহত্যা বন্ধের পক্ষে জনমত গঠন করেছিলেন।

মিস্টার প্রেসিডেন্ট বইটির নায়ক চরিত্রে আছেন বিচারপতি আবু সাঈদ চৌধুরী। খুশি মনে বলতে চাই, যাদের নাম বইটিতে উল্লেখ করা হয়েছে এ পর্যন্ত তাঁদের ছয়জনের হাতে মিস্টার প্রেসিডেন্ট পৌঁছে গেছে । এই গুরুত্বপূর্ণ কাজে সাহায্য করার জন্য নিগার সুলতানা, মুনির বাবু সহ সংশ্লিষ্ট সকলের কাছে আমার কৃতজ্ঞতা।

- Advertisement -

Read More

Recent