শনিবার - মার্চ ২ - ২০২৪

জরুরি কক্ষ এড়িয়ে যাওয়ার আহ্বান কুইবেকের স্বাস্থ্যমন্ত্রীর

প্রদেশের জরুরি কক্ষের ভিড় কমিয়ে আনার পরিকল্পনা ১৯ ডিসেম্বর উপস্থাপন করেছেন কুইবেকের স্বাস্থ্যমন্ত্রী ক্রিস্টিয়ান দুবে

প্রদেশের জরুরি কক্ষের ভিড় কমিয়ে আনার পরিকল্পনা ১৯ ডিসেম্বর উপস্থাপন করেছেন কুইবেকের স্বাস্থ্যমন্ত্রী ক্রিস্টিয়ান দুবে। সেই সঙ্গে সম্ভব হলে জরুরি কক্ষ এড়িয়ে চলতে নাগরিকদের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন তিনি।

এর পরিবর্তে রোগীদেরকে তাদের নিজস্ব বিচারবুদ্ধি কাজে লাগাতে হবে এবং অন্য কোথাও সেবা নেওয়া যায় কিনা সেটা খুঁজতে হবে। হাসপাতালে যাওয়ার সত্যিই কোনো প্রয়োজন না থাকলে ফ্যামিলি মেডিসিন ক্লিনিক অথবা নার্সদের দ্বারা পরিচালিত ক্লিনিকে তাদের সেবা নেওয়ার আহ্বান জানিয়েছেন স্বাস্থ্যমন্ত্রী।

- Advertisement -

মন্ট্রিয়লে দুবে সাংবাদিকদের বলেন, জরুরি বিভাগের পরামর্শ নেওয়া বিপুল সংখ্যক মানুষের সত্যিই জরুরি কোনো সমস্যা নেই। আমি বলছি না যে তারা উদ্বিগ্ন নন। কিন্তু তাদের জরুরি সমস্যা নেই। লোকজন ৮১১ নম্বরে ফোন করে নার্সদের সঙ্গে কথা বলে কোনো মেডিকেল ক্লিনিকের অ্যাপয়েন্টমেন্ট নিতে পারেন।

প্রদেশের জরুরি বিভাগের চারজন প্রধান চিকিৎসক তাকে চিঠি পাঠানোর চারদিন পর এই ঘোষণা দিলেন স্বাস্থ্যমন্ত্রী। চিঠিতে তারা বলেন, বেশি রোগীর কারণে জরুরি কক্ষ নিয়ন্ত্রণের বাইরে চলে গেছে।

দুবে বলেন, সরকার হাসপাতালের শয্যা খালি করার পদক্ষেপও নিচ্ছে, যাতে করে জরুরি বিভাগের রোগীদের এখানে স্থানান্তর করা যায়।

তিনজন জরুরি কক্ষের চিকিৎসক ১৮ ডিসেম্বর দ্য কানাডিয়ান প্রেসকে বলেন, কুইবেকের হাসাপাতালগুলোর জরুরি কক্ষে রোগীদের ভিড় কারণ প্রাথমিক কারণ হলো রোগীদের হাসপাতালে ওয়ার্ডে স্থানান্তরে হিমশিম খেতে হচ্ছে।

হেলথ ডেটা ওয়েবসাইট ইনডেক্স সান্তের তথ্য অনুযায়ী, কুইবেকে ১৯ ডিসেম্বর বিকালে জরুরি বিভাগে অকুপেন্সির হার ছিল গড়ে ১৩১ শতাংশ। মন্ট্রিয়লের বড় উপশহর লাভালে এ হার ছিল আরও বেশি ১৮২ শতাংশ। পার্শবর্তী লানোদিয়ের অঞ্চলে এ হার ছিল ১৭১ শতাংশ।

This article was written by Rezaul Haque as part of the LJI

- Advertisement -

Read More

Recent