বৃহস্পতিবার - এপ্রিল ১৮ - ২০২৪

মানব ক্লোন

মানব ক্লোন

আমার জানা মতে মানব ক্লোন সব দেশেই নিষিদ্ধ। কোন দেশেই এখনো পর্যন্ত মানব ক্লোনের অনুমতি দেওয়া হয়নি।

পৃথিবীর প্রায় সব উন্নত দেশই ভবিষ্যত প্রজন্মকে ক্ষতিকর প্রভাব হতে রক্ষা ও মানব কল্যাণের জন্য মানব অনুকৃতি উৎপাদন নিষিদ্ধ করা হয়েছে।

- Advertisement -

ইদানীং খুব artificial intelligence বা কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তার কথা শুনা যাচ্ছে।

এই কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তারও কিন্তু ক্ষতিকর প্রভাব থাকতে পারে। কিন্তু কোন দেশ AI প্রযুক্তিকে নিষিদ্ধ করছে না। কেন করছে না তার কোন ব্যাখ্যা পাওয়া যায়নি। খুব সম্ভব এর ক্ষতিকর প্রভাবের চেয়ে এর উপকারী দিকটিই বেশি।
কিন্তু AI এর ক্ষতিকর দিকটি একেবারে উড়িয়ে দেওয়ার মতো নয়।

বেশ কিছু দিন আগে ভারতীয় নায়িকা রশ্মিকা মন্দানার একটি অশ্লীল ভিডিও ভাইরাল হয়েছিল। প্রকৃতপক্ষে সেটি রাশ্মিকা মন্দানা নয়। অন্য একটি মেয়ের দেহে AI প্রযুক্তি ব্যবহার করে রাশ্মিকা মন্দানার দেহ প্রতিস্থাপন করা হয়েছিল।

আগে ফটোসপের মাধ্যমে এই ধরনের ফেইক ভিডিও বা ছবি বানানো যেতো কিন্তু ফটোসপ তেমন নিখুঁত হতো না। যে কারো পক্ষে ফটোসপের কারসাজি ধরে ফেলা সম্ভব ছিল । কিন্তু AI প্রযুক্তির মাধ্যমে এত নিখুঁতভাবে এক জনের দেহে আরেকজনকে প্রতিস্থাপন করা হয় যে তা নকল বলে বুঝার উপায় নেই।

এমনকি কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তার সাহায্যে অবিকল একজনকে কপি করা সম্ভব হচ্ছে। চেহারা থেকে শুরু করে কন্ঠস্বর পর্যন্ত কপি করা যাচ্ছে।

কিছু দিন আগে পাকিস্তানে নির্বাচন হয়ে গেলো। এই নির্বাচনের পূর্বে ইমরান খান কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তা ব্যবহার করে নির্বাচনের মেনুফেস্টো ঘোষণা করেছিলেন। আবার নির্বাচন হয়ে যাওয়ার পর তিনি কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তার সাহায্যে ভিক্টরী স্পিচ দিয়েছেন। এই সব ভাষনে দেখা যায় অবিকল একজন ইমরান খানকে। কিন্তু সেটি ছিল ইমরান খানের মতো দেখতে কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তার ইমরান খান।

এখন অনেক চ্যানেলে কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তার সংবাদ পাঠক পাঠিকারা সংবাদ পাঠ করে।

কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তার সাহায্যে ইমরান খানের ভাষন, কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তার সাহায্যে সংবাদ পাঠ ; এই সব হচ্ছে AI এর পজেটিভ ব্যবহার।

ভয় আর ঝুঁকির ব্যাপার হচ্ছে, যে কেউ AI এর সাহায্যে আপনার অনুরূপ বানিয়ে যে কোন কিছু করতে পারে। আপনাকে বিপদে ফেলে দিতে পারে।

তাই ভবিষ্যতে হয়ত AI প্রযুক্তি ব্যবহারের ক্ষেত্রে কিছু নিয়ন্ত্রণমূলক ব্যবস্থার কথা আসতে পারে। যেমন, AI প্রযুক্তির সাহায্যে কাউকে কপি করা হলে সেটি শাস্তিযোগ্য অপরাধ হিসাবে গন্য হবার মতো আইন করা যাতে পারে।

মানব ক্লোন যে কারনে নিষিদ্ধ করা হয়েছে, কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তাও একই কারনে হয় নিষিদ্ধ, না হয় নিয়ন্ত্রণের উপায় এখনই বের করা বাঞ্চনীয়।

- Advertisement -

Read More

Recent