শনিবার - মার্চ ২ - ২০২৪

এবার ওপেন চ্যালেঞ্জ দিলেন সানাই মাহবুব

তিনি ছোট বা বড় পর্দার নামকরা কোনো অভিনেত্রী বা মডেল নন। তার পরও তাকে নিয়ে বিস্তর আলোচনা শোবিজ অঙ্গণে। বলছি সানাই মাহবুবের কথা। যিনি ২০১৯ সালে বিদেশে গিয়ে সার্জারির মাধ্যমে ব্রেস্টের আকার বৃদ্ধি করে রাতারাতি আলোচনায় আসেন।

- Advertisement -

বর্তমানে দাম্পত্য জীবনে চরম কষ্টে আছেন তিনি। বিয়ের এক বছর না পেরোতেই বিচ্ছেদের পথে সংসার। এরই মাঝে তার স্বামী আবু সালেহ মুসা অভিযোগ করেছেন— তাকে মারধর করেছেন সানাই। এতে তার কিডনিতে সমস্যা হয়েছে।

গত ৩১ মে আবু সালেহ মুসা এমন গুরুতর অভিযোগ করেন। তারপর সানাই মাহবুবের মুঠোফোনে চেষ্টা করেও তাকে পাওয়া যায়নি। এ নিয়ে ফেসবুকেও নিজের অবস্থান পরিষ্কার করতে দেখা যায়নি তাকে। অবশেষে বিষয়টি নিয়ে মুখ খুললেন সানাই মাহবুব। তার দাবি— আবু সালেহ মুসার এসব অভিযোগ সত্যি নয়।

আজ শুক্রবার দুপুরে সানাই মাহবুব তার ফেসবুকে একটি স্ট্যাটাস দিয়েছেন। এতে তিনি বলেন, ‘পেজ হ্যাক হওয়ার কারণে আমি অ্যাকসেস পাচ্ছিলাম না। আর ওইদিকে আমাকে নিয়ে উল্টা-পাল্টা নিউজ হচ্ছে। আচ্ছা, সাংবাদিক ভাইয়ারা আপনাদের কাছে তো আমার নাম্বার আছে, নিউজের আগে কি আপনারা একটাবার আমাকে ফোন করার প্রয়োজন মনে করেন নি?’

স্বামীকে মারধরের অভিযোগ উড়িয়ে দিয়ে সানাই মাহবুব বলেন, ‘আমি কোন দুঃখে আমার স্বামীকে মারতে যাব? আর কিডনি ড্যামেজ করে দিছি মানে কি? আপনারা সবাই মিলে আসেন পপুলার কিংবা ল্যাবএইড গিয়ে আমার স্বামীর কিডনি পরীক্ষা করে দেখি, রিপোর্ট কি আসে। তাৎতক্ষণিকভাবে প্রমাণ হবে কিডনি ঠিক আছে কি না।’

সাংবাদিকদের প্রতি প্রশ্ন ছুঁড়ে দিয়ে সানাই মাহবুব বলেন, ‘এসব আশ্চর্যজনক নিউজ আপনারা কিসের ভিত্তিতে করেন? আপনারা আসেন না ভাই, ওকে নিয়ে পপুলার বা ল্যাবএইডে গিয়ে একটা টেস্ট করাই, তারপর না হয় রিপোর্টের ছবি দিয়ে নিউজ করলেন।’

রিপোর্ট ভুয়া বানানো যায়। তা উল্লেখ করে সানাই মাহবুব বলেন, ‘রিপোর্ট তো ভুয়া বানানো যায়। কারণ আমার স্বামীর পরিচিত ডাক্তার আছে ডজন ডজন। তাই তার কিডনির পরীক্ষা আপনাদের উপস্থিতিতে ফেসবুক লাইভে থেকে করা হবে। দেখি কি রিপোর্ট আসে।’

চ্যালেঞ্জ ছুঁড়ে দিয়ে সানাই মাহবুব বলেন, ‘আমার সৎ সাহস আছে, আমি ওপেন চ্যালেঞ্জ করতেছি, চলেন ওকে নিয়ে পপুলার কিংবা ল্যাবএইডে যাই কিংবা এভার কেয়ারে কিংবা অন্য কোনো হাসপাতালে যাই। প্রমাণ চলে আসবে, আপনারা সবাই আসেন।’

কয়েক দিন আগে সানাই মাহবুবের স্বামী আবু সালেহ মুসা অভিযোগ করে বলেন, ‘আজ একটু কথা-কাটাকাটি হয়েছে। এতে সে আমাকে ঝাড়ু দিয়ে মারছে। দুই-তিনটা লাথি মারছে, লাথি মেরে আমার কিডনির সমস্যা করে দিয়েছে। এর আগেও, পা ও লাথি দিয়ে মারছে। তবু কিছু বলিনি।’

প্রসঙ্গত, ২০২২ সালের ২৭ মে পারিবারিক আয়োজনে অনেকটা গোপনেই বিয়ে করেন আবু সালেহ মুসাকে। বিয়ের পরই শোবিজকে বিদায় জানিয়ে ধর্ম-কর্মে মনোযোগী হয়েছেন এই অভিনেত্রী।

সূত্র : ঢাকাটাইমস

- Advertisement -

Read More

Recent